পাকিস্তানের কর্তারপুরে পৌঁছে গিয়েছেন  প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।  সঙ্গে রয়েছেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং, অভিনেতা তথা রাজনীতিবিদ সানি দেওল। পাকিস্তানের এক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে মনমোহন সিং বলেন, শিখ সম্প্রদায়ের জন্য আজকে একটা ঐতিহাসিক দিন। কর্তারপুর করিডরে খুলে দেওয়ার মাধ্যমে ভারত-পাকিস্তানের সম্পর্কের উন্নতি হবে বলে মনে করছেন মনমোহন সিং।  আজকে পাকিস্তানের দিকে কর্তারপুর করিডর উদ্বোধন করবেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী  ইমরান খান। পঞ্জাবের গুরুদাসপুরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট উদ্বোধন করেন। 


গুরুদাসপুরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট উদ্বোধন করতে গিয়ে বলেন,  ভারতের অনুভূতি বুঝে ইমরান খান যে কর্তারপুর করিডর খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, সেই কারণে তাঁকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এই কর্তারপুর করিডর উদ্বোধনের ফলে শিখ পুণ্যার্থীর খুব সহজেই পাকিস্তানের দরবার সাহিবে যেতে পারবেন। গুরু নানকের ৫৫০ তম জন্মদিনের আগে কর্তারপুর করিডরের উদ্বোধন হওয়ার জন্য প্রতিটি ভারতবাসী আন্তরিকভাবে আনন্দিত।  

প্রসঙ্গত, ২৪ অক্টোবর ভারত পাকিস্তান কর্তারপুর করিডর চুক্তি স্বাক্ষরিত করে। পাকিস্তানের নারওয়াল জেলায় ভারত-পাক সীমান্তের কর্তারপুর জিরো পয়েন্টে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই দরবার শরিফে শিখ ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা গুরু নানক জীবনের শেষ ১৮ বছর অতিবাহিত করেছিলেন। শিখদের পবিত্র তীর্থস্থান হিসেবে কর্তারপুর সাহিব গুরুদ্বারকে মনে করা হয় বলে জানা গিয়েছে।