শনিবার সকাল থেকে নতুন করে শুরু হওয়া প্রবল বৃষ্টির জোরে ব্যহত বাণিজ্য নগরীর স্বাভাবিক জনজীবন। সকাল থেকেই আকাশ ভেঙে বৃষ্টি। গত কয়েকদিনের প্রবল বর্ষণের পরে ক্ষণিক স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছিলেন মুম্বইয়ের বাসিন্দারা। শনিবার ভোর থেকে আবার বরুণদেবের কল্যাণে ভাসল মুম্বই। অল্প-সময়ের মধ্যেই জল জমে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে থানে শহরের ভিওয়ান্দি অঞ্চল। 
দুর্ভোগের কবলে পড়েন মুলুন্দ স্টেশনের যাত্রীরা। বৃষ্টির দাপটে একটি গাছের অংশ ভেঙে পরে প্লাটফর্মের ছাউনির ওপর। ডালপালার কিছু অংশ গিয়ে পড়ে রেল-লাইনের প্যান্টোগ্রাফের ওপর। মুহূর্তে স্তব্ধ হয়ে পরে সমগ্র অঞ্চলের রেল পরিসেবা। খবর  পেয়ে দ্রুত তৎপর হয়ে ওঠে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর। অল্প-সময়ের মধ্যেই ডালপালা সরিয়ে ফের স্বাভাবিক করা হয় পরিসেবা। দুইদিন আগেই আবহাওয়া দফতরের তরফ থেকে ঘোষণা করা হয়েছিল যে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আর নেই। সেই ভবিষ্যৎবাণী-কে নাকোচ করে দিয়ে আবারও বাণিজ্য-নগরী কে ভাসিয়ে দিয়ে গেল মৌসুমি বায়ু।  
২৮শে জুন থেকে শুরু হওয়া প্রবল বর্ষণের ফলে ইতিমধ্যেই মুম্বই শহরে ৮০০ মিমি-র কাছাকাছি বৃষ্টিপাত হয়েছে যা গোটা জুলাই মাসের গড় বৃষ্টিপাতের সমান। নিকাশি নালার সময় মত সংস্কারের অভাবে বিস্তীর্ণ অঞ্চলে  জমা জলের সমস্যা দেখা দিয়েছে। কিছু কিছু অঞ্চলে এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে জল জমে রয়েছে। বিরোধী কংগ্রেস এবং এন সি পি এই জন্য কাঠগড়ায় তুলেছে শিবসেনা পরিচালিত বৃহণ মুম্বই কর্পোরেশন-কে।