কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গিয়েছে।  দেশের ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্পকে সঙ্গে নিয়ে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আসছেন ভারতে। চারদিকে সাজোসাজো রব। সূর্যাস্তের সময়ে তাজমহল দেখবেন সেদেশের ফার্স্ট লেডি। তাই গুজরাতের সাবরমতী আশ্রম আর ঘুরে দেখা হবে না তাঁর। এই পরিস্থিতিতে প্রশ্ন একটাই, সস্ত্রীক ভারত সফরে কী থাকবে ট্রাম্পের মেনুতে?

এখনও সরকারিভাবে মেনুর কথা ঘোষণা করা হয়নি। তবে অনুমান করতে দোষ নেই। এর আগে জর্জ বুশ যখন এদেশে এসেছিলেন, তখন তাঁর পাতে পড়েছিল বিরিয়ানি। বারাক ওবামা যখন এসেছিলেন, তখন তাঁর মেনুতে ছিল কাবাব। আর ট্রাম্পের মেনুতে কী থাকবে?

২৫ ফেব্রুয়ারি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও আমেরিকার ফার্স্ট লেডি ভারতে আসছেন ২৪ ফেব্রুয়ারি। পরের দিন ২৫ ফেব্রুয়ারি তাঁরা পৌঁছবেন দিল্লিতে। সেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আতিথ্য়ে  মধ্য়াহ্ন ভোজন সারবেন তাঁরা। থাকবেন অন্য়ান্য় অতিথিরাও।

উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক সারা হয়ে গেলে সস্ত্রীক ট্রাম্প সেখান থেকে যাবেন রাষ্ট্রপতি ভবনে। সেখানে  রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে রাজকীয় নৈশভোজন করবেন তাঁরা। কিন্তু কী থাকবে তাঁর পাতে?  এখনও অবধি সরকারিভাবে কিছু জানা যায়নি ঠিকই, তবে তা নিয়ে চলছে জোর জল্পনা। সাধারণের মধ্য়ে এখন একটাই কৌতূহল, মধ্য়াহ্নভোজনে ট্রাম্পের জন্য় কী মেনু তৈরি করছেন নরেন্দ্র মোদী?

আগে বিভিন্ন সময়ে এদেশে এসেছিলেন একাধিক মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এসেছিলেন জর্জ বুশ ও বারাক ওবামা। দেখা যাক তাঁদের মেনুতে কী ছিল?

২০০৬ সালে জর্জ বুশ এসেছিলেন তাঁর স্ত্রী লরাকে নিয়ে। তখন দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মনমোহন সিং। দিল্লির তাজ প্য়ালেসে তখন এক ভোজসভার আয়োজন করেছিলেন ইউপিএ সরকারের প্রধানমন্ত্রী। কী ছিল সেই মধ্য়াহ্নভোজনে? ছিল বিরিয়ানি। সেইসঙ্গে বিভিন্ন ধরনের কারি, সিফুড। আর ডেজার্টে ছিল মহারাষ্ট্র থেকে আনানো মহার্ঘ্য় আলফানসো আম।

এরপরে ২০১০ সালে এদেশে এসেছিলেন বারাক ওবামা। তখনও কেন্দ্রে ইউপিএ সরকার। প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং আর রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা। রাষ্ট্রপতি ভবনের মুঘল গার্ডেন্সে আয়োজন করা হয় বিশাল ভোজসভার। সেখানে বারাক ও মিশেল ওবামার জন্য় মেনুতে থাকে শামি কাবাব। সেইসঙ্গে ছিল আচরি ফিশ টিক্কা, পেস্তা মুর্গ, পালঙ্ক পাপড়ি চাট, আনারসের হালুয়া।

এর পাঁচ বছর পরে ২০১৫ সালে আবার ভারতে আসেন বারাক ওবামা। তখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সস্ত্রীক ওবামার জন্য় সেবার মেনু ছিল  সর্ষে দিয়ে মাছের ঝাল, গুস্থাবা আর আচরি পনির।

অতএব, এবার ট্রাম্পের পাতে কী পড়তে চলেছে তা সহজেই অনুমান করা যায়।