সব  ঠিকঠাকই চলছিল। বিয়ে করে বউকে নিয়ে ফিরছিল বর। পথে ধাবা দেখে সেখানে খেতে যায় বরাযাত্রী। আর তারপরই রহস্য়জনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যায় বর। একদিন বাদে তার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় কাছেপিঠের এক জঙ্গল  থেকে। উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদের পাকবাদা থানার এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য় দেখা দিয়েছে। আত্মহত্য়া না খুন, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ঘটনাটি  ঘটেছে সোমবার । জানা গিয়েছে, সদ্য়বিবাহিত ওই ব্য়ক্তির নাম দুশ্য়ন্ত গিরি। বয়স ২২। ওই যুবক থাকতেন আমরোহা জেলার কুনাদালি জেলায়। বরেলি জেলার কুতাকাপুরের মেয়েকে বিয়ে করে ফিরছিলেন তিনি। দুশ্য়ন্ত ছিলেন একটি গাড়িতে, সদ্য়বিবাহিত স্ত্রী আশাকে নিয়ে। গাড়িতে ছিলেন আশার ভাই ও এক আলোকচিত্রী। মাঝপথে সবাই একটি ধাবার সামনে গাড়ি থামায়। গাড়ি থেকে নেমে দুশ্য়ন্ত তাড়াতাড়ি ধাবার ভেতর ঢুকে যান প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে। আর তারপরই রহস্য়জনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যান।

সঙ্গে সঙ্গে খোঁজাখুজি শুরু করে দেয় সবাই। কিন্তু কোথাও পাওয়া যায় না দুশ্য়ন্তকে। তখন পুলিশে খবর দেওয়া হয়। পরের দিন সদ্য়বিবাহিত বরের দেহ খুঁজে পাওয়া যায় হাইওয়ে থেকে দু-কিলোমিটার দূরের একটি জঙ্গলে। গলায় দড়ি দেওয়া অবস্থায় একটি গাছের ডালে ঝুলতে দেখা যায় দুশ্য়ন্তকে। গ্রামের লোকেরা ওই অবস্থায় দুশ্য়ন্তকে দেখে খবর দেন থানায়।

দুশ্য়ন্তের এই রহস্য়জনক মৃত্য়ুর কারণ কী, তা কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছেন না তাঁর পরিবারের সদস্য়রা। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। ময়নাতদন্তের জন্য় পাঠানো হয়েছে দেহকে। প্রাথমিকভাবে আত্মহত্য়া মনে হলেও, পুলিশ খতিয়ে দেখছে, এই মৃত্য়ুর পিছনের অন্য় কোনও কারণ রয়েছে কিনা।