সোশ্যাল মিডিয়ায় যখন যে ট্রেন্ড চলে তখন সেই ট্রেন্ডে গা ভাসিয়ে দেয় সাধারণ মানুষ। এর মধ্য টিকটকে ভিডিও বানানোর ট্রেন্ডটি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। উল্লেখযোগ্য এইজন্য কারণ সাম্প্রতিককালে এমন কয়েকটি ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে যেখানে দেখা গিয়েছে কর্মক্ষেত্রে টিকটকে ভিডিও বানিয়ে একাধিক প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন বেশকিছু মানুষ। শুধু তাই নয়, কাজে গাফিলতি করে টিকটক ভিডিও করে সংশ্লিষ্ট বিভাগের তরফ থেকে কড়া ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই মহিলা যা করলেন তাতে নিজের চাকরিই খোয়াতে হল তাঁকে। 

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একজন পুলিশকর্মীর বানানো টিকটক ভিডিও। ভিডিওটিতে দেখআ গিয়েছে লকআপের সামনেই টিকটকে মশগুল এক অল্প বয়সী মহিলা পুলিশকর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর গুজরাতের মাহেসানা জেলার লাঙ্ঘনাজ পুলিশ স্টেশনে। গোলাপি রঙের শার্ট পরে টিকটকে স্লো মোশন গানের সঙ্গে তাঁর নাচ ইতিমধ্যেই সকলের আঙুলের ডগায় ঘুরছে। আর এরপরই তাঁর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিল পুলিশ প্রশাসন।

জানা গিয়েছে ওই মহিলা পুলিশকর্মীর নাম অর্পিতা চৌধুরি। ডেপুটি পুলিশ সুপার মনজিতা বানজারা জানিয়েছেন, নিয়ম ভঙ্গ করেছেন তিনি। প্রথমত একজন অন ডিউটি পুলিশ অফিসার হয়েও তিনি নিজের ইউনিফর্ম পরেননি। দ্বিতীয়ত, থানার মধ্যে দাঁড়িয়েই তিনি এমন ভিডিও শ্যুট করেছেন। পুলিশকর্মীদের সর্বদা উচিত নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে চলা, যা তিনি করেননি আর সেই কারণেই তাঁকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হল বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত,  এর আগেও ওড়িশায় হাসপাতালে একজন নার্সের ভাইরাল ভিডিও প্রকাশের কারণে তাঁকে শোকজ করা হয়েছিল। তেলেঙ্গানায় সরকারি কর্মচারীদের টিকটকে ভিডিও বানানোর জন্য অভিযুক্রদের বদলির নির্দেশ দিয়েছিল তেলেঙ্গানা সরকার। আর এবার থানার মধ্যে নিয়ম শৃঙ্খলা ভেঙে চাকরি হারালেন এই মহিলা পুলিশকর্মী।