ক্রমশই ভয়াবহ আকার ধারণ করছে বিহার। ইতিমধ্যেই এনকেফালাইটিসের জেরে প্রাণ গিয়েছে ১০৮ টি শিশুর। এখনও প্রায় ৩০৯ জন শিশু মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। বিহারে এই শিশু মৃত্যুর মিছিলই জানান দিচ্ছে যে, এখনই এই রোগের মোকাবিলার কোনও সূত্র খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। 

অনেক জল্পনার পর সেখানে গিয়ে পৌঁছেছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার। পাটনা থেকে মাত্র ৭০ কিলোমিটার দূরে মুজাফফরপুরে পৌঁছাতে কেন তাঁর এতদিন সময় লাগল সেি নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেই মারা গিয়েছে ৮৫ জন শিশু। প্রসঙ্গত এনকেফালাইটিসে আক্রান্ত হয়ে মৃত শিশুর পরিবারের জন্যে চার লক্ষ টাকা করে অনুদান ঘোষণা করা হয়েছে সরকার। 

 

আর এবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন পাটনা ও মুজাফফরপুরে অবস্থা পরিদর্শনে গিয়েছেন। সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি জানিয়েছেন, প্রতিঘণ্টায় তাঁরা বিষয়টিকে পর্যবেক্ষণ করছেন। তাঁদের তরফ থেকে যতটুকু করা সম্ভব তা করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন। 

 

সেইসঙ্গে বিহারের মুখ্য সচিব জানিয়েছেন, সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, মূলত যেসব জায়গায় শিশুরা আক্রান্ত হয়েছে, সেইসমস্ত স্থান তাঁরা পরিদর্শন করে দেখবেন। আক্রান্ত শিশুদের আর্থ-সামাজিক অবস্থা এবং তাঁরা কোন পরিবেশে বসবাস করে ইত্যাদি যাবতীয় তথ্যের জন্য এই পরিদর্শনের কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে। পরিদর্শনকারী ওই দল তাঁদের দারিদ্র, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা এবং অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয়গুলি পর্যালোচনা করে তাঁদের মতামত দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।