ভারত ও ইউরোপিয় ইউনিয়ন দীর্ঘ দিনের সহযোগি। বিশ্ব শাস্তি ও স্থিতাবদ্ধার জন্য পারস্পরিক স্থিতাবস্থা বজায় রাখা অত্যান্ত জরুরি। ইউরোপিয় দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্ক আরও দৃঢ় করার দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে ভারত। বুধবার ১৫ তম ভারত ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন সামিটে তেমনই বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের জন্য মার্চ মাসে সামিট পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলেও এদিন জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। 

 


প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন করোনাভাইরস পরবর্তী বিশ্ব নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হবে। সমস্যা সমাধানে গণতান্ত্রিকদেশগুলিকে একত্রিত হয়ে কাজ করতে হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন এখনও পর্যন্ত ১৫০ টি দেশে ওষুধ পাঠিয়েছে ভারত। মহামারী মোকাবিলায় একাধিক এলাকায় যৌথ উদ্যোগে কাজ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। 

 


প্রধানমন্ত্রী ইউরোপিয় ইউনিয়নের অধীনস্ত দেশ ও ইউরোপের দেশগুলির কাছে করোনাভাইরাসের প্রতিরোধে সরঞ্জাম পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে দ্রুত পদক্ষেপ করার আর্জি জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি ভারতের ফার্মাসি সংস্থাগুলির অবদানের কথাও মনে করিয়েদেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন নাগরিকদের স্বাস্থ্য ও সমৃদ্ধি উভয় আজ চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। তাই ভারত ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন মানবিক বিশ্ব গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহনের জন্য এগিয়ে আসতে হবে। 

প্রধানমন্ত্রীর কথায় ক্ষণস্থায়ী চ্যালেঞ্জ ছাড়াও দীর্ঘমেয়াদী চ্যালেঞ্জ রয়েছে বিশ্বের সামনে। তাই জলবায়ু পরিবর্তনসহ একাধিক বিষয় নিয়ে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা শুরু করতে হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। ভারত পুরনর্নবিকরণের জন্য ইউরোপীয় বিনিয়োগ ও প্রযুক্তিকেও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।