গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে ১৬,৩৭৫ টি নতুন কোভিড-১৯ রোগীর সন্ধান মিলেছে। আর এই সময়কালে, কোভিড জনিত কারণে মৃত্য়ু হয়েছে ২০১ জনের। সব মিলিয়ে মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) সকালে ভারতের মোট করোনা রোগীর সংখ্যা পৌঁছেছে ১.০৩ কোটিতে (১,০৩,৫৬,৮৪৪)। আর মোট মৃতের সংখ্যা প্রায় দেড় লক্ষে পৌঁছেছে (১,৪৯,৮৫০), বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক।

গত একদিনে প্রায় ২৯,০০০ মানুষ সংক্রমণের মুক্ত হয়েছেন। অর্থাৎ নতুন আক্রান্তের সংখ্যার থেকে সুস্থ হয়ে যাওয়া রোগীর সংখ্যাটা দ্বিগুণ। চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যার নিম্নগতিও অব্যাহত রয়েছে। বর্তমানে ভারতে চিকিত্সাধীন রোগীর সংখ্যা ২.৩১ লক্ষ। এর মধ্যে ৩৮ জনের দেহে করোনার ব্রিটেন থেকে পাওয়া নতুন রূপান্তর - বি ১.১.৭ রয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১০ জন এরমধ্যে কর্ণাটকের, ৩ জন অন্ধ্রপ্রদেশের, ৫ জন মহারাষ্ট্রের, ১৯ জন দিল্লির, এবং ১ জন পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার বাসিন্দা।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, গত ২৫ নভেম্বর থেকে ২৩ ডিসেম্বর মধ্যরাতের মধ্যে প্রায় ৩৩,০০০ যাত্রী যুক্তরাজ্য থেকে বিভিন্ন ভারতীয় বিমানবন্দরে অবতরণ করেছিলেন। এই সমস্ত যাত্রীদের সংশ্লিষ্ট রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে খুঁজে বের করে তাঁদের আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করানো হচ্ছে। ভারতে এই মুহূর্তে সার্বিকভাবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার নিম্নমুখি হলেও, যুক্তরাজ্যে এই নতুন স্ট্রেনের জন্যই অনুতন করে ,সম্পূর্ণ লকডাউন জারি করতে হচ্ছে। তাই এই রূপান্তরিত করোনায় আক্রান্তদের সনাক্তকরণ অত্যন্ত জরুরি। ভারতে আপাতত এই নতুন রূপান্তরিত ভাইরাসে আক্রান্তদের প্রত্যেককে একেবারে আলাদা আলাদা কক্ষে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।