ঠিক যেন সিনেমার দৃশ্য। গর্বিত নিম্ন পদস্থ পিতা, তাঁর ঊর্ধ্বতন পদে নিযুক্ত কন্যাকে, কাজের প্রথম দিন স্বাগত জানাচ্ছেন। এর থেকে গর্বের মুহূর্ত কোনও পিতার জন্য আর কী হতে পারে? তবে এটা কোনও কল্পকাহিনি নয়, একেবারে বাস্তব ঘটনা। অন্ধ্রপ্রদেশের বাসিন্দা শ্যাম সুন্দর পুলিশের সার্কেল ইন্সপেক্টর। সম্প্রতি পুলিশ বিভাগেই ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট হিসাবে যোগ দিয়েছেন তাঁর কন্যা জেসি প্রশন্তী। রবিবার, তিরুপতিতে অন্ধ্র রাজ্য। পুলিশের এক সম্মেলনে ঘটনাটি ঘটে।

৪ জানুয়ারি থেকে অন্ধ্র রাজ্য পুলিশের সম্মেলনটি শুরু হয়েছে। চলবে ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত। মুখ্যমন্ত্রী ওয়াইএস জগনমোহন রেড্ডি সোমবারই ভিডিও কনফারেন্স মারফত 'ইগনাইট' নামে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। অন্ধ্রপ্রদেশ পুলিশ বিভাগ টুইটারে সেই সম্মেলনেই বাবা-মেয়ের মুখোমুখি হওয়ার একটি ছবি শেয়ার করেছে। সেখানে বাবা তথা সার্কেল ইন্সপেক্টর শ্যাম সুন্দরকে দেখা গিয়েছে  পুলিশের গর্ব-সহকারে নিজের মেয়ে তথা নতুন সুপারিন্টেন্ডেন্ট-কে হাসিমুখে স্যালুট করতে। এই অনবদ্য হৃদয়স্পর্শী ছবিটি পোস্ট করে অন্ধ্রপ্রদেশ পুলিশ লিখেছে, সার্কেল ইন্সপেক্টর শ্যাম সুন্দর 'গর্ব ও শ্রদ্ধা'র সঙ্গে নিজের মেয়ে জেসি প্রশন্তীকে স্যালুট করছেন। জেসি প্রশন্তি গুন্টুর-এর ডেপুটি সুপার হিসাবে নিযুক্ত হয়েছেন।   

বাবা-মেয়ের এই ছবিটি সোশ্য়াল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। বহু মানুষ ছবিটি রিটুইট এবং লাইক করেছেন। নেটিজেনরা বলেছেন, বাবার মুখে গর্বের ছাপ যেমন স্পষ্ট, তেমনই সেই গর্বের পরিপূরক হয়েছে মেয়ের মুখের উজ্জ্বল হাসি। বাবা-মেয়ে জুটির কর্মজীবনের এক দুর্দান্ত দিন।

এর আগে এক সাক্ষাত্কারে ডিএসপি প্রশন্তীকে জানিয়েছিলেন, বাবার উত্সাহ এবং সমর্থনেই তিনি পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেছেন। তিনি আরও জানান, বাবাকে দেখে তিনি নে মনে ছটফট করতেন। ছোটবেলা থেকে বছরের পর বছর ধরে বাবাকে নিরলসভাবে মানুষকে সহায়তা করতে দেখেই তিনি পুলিশ বিভাগে যোগদানের অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন।