বছরের মাঝামাঝি করোনাভাইরাসের সংকট ও পূর্ব লাদাখ সেক্টরে চিনের সঙ্গে চলমান অস্থিরতার কারণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আত্মনির্ভর ভারত গঠনের ডাক দিয়েছিলেন। তিনি স্থানীয় শিল্পসহ নানাবিধ জিনিসের জন্য সরব হওয়ার কথাও বলেছিলেন। বছরের শেষ প্রান্তে এসে সেই দিকে আরও একধাপ এগিয়ে গেল প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। মন্ত্রিপরিষদের কাছে অনুমোদন পাওয়ার পর এবার ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি আকাশ মিসাইল সিস্টেম বিদশে রফতানি শুরু করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। 

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে জানিয়েছেন, আত্মনির্ভর ভারত গঠনের লক্ষ্যে ভারত বিভিন্ন ধরনের প্রতিরক্ষা প্ল্যাটফর্ম ও ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির ক্ষমতা বাড়াচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠক আকাশ মিসাইল সিস্টেম রফতানির অনুমোদন দিয়েছে। দ্রুত অনুমোদনের জন্য একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, আকাশ মিসাইল সিস্টেম ৯৬ শতাংশই দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি হয়েছে। এই ক্ষেপণাস্ত্রটির কার্যকারিতা কয়েক সপ্তাহ আগে ভারত পরীক্ষা করে দেখেছে। ডিআরডিও দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে এটি তৈরি হয়েছে। এটি ২৫ কিলোমিটার পর্যন্ত নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম। মাটি থেকে আকাশে উৎক্ষেপণ করা যায়। 

প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে আগেই জানান হয়েছিল মূলত চিন ও পাকিস্তানের সঙ্গে সীমান্ত উত্তেজনার কারণেই আকাশ মিসাইল সিস্টেমটি ব্যবহার করা হবে। সীমান্তবর্কী এলাকায় এটি মোতায়েন করা হয়েছে। তবে এই ক্ষেপণাস্ত্রের যে সংস্করণটি বিদেশে রফতানি করা হবে সেটি দেশে ব্যবহৃত ক্ষেপণাস্ত্রের তুলনায় কিছুটা আলাদা হবে। কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই ৫০ বিলিয়ন ডলার প্রতিরক্ষা সামগ্রী রফতানির লক্ষ্য গ্রহণ করেছে। যেসব দেশগুলির সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক রয়েছে, সেই সব দেশের সঙ্গে কৌশলগত সম্পর্ক বাড়িয়ে তোলার লক্ষ্যেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। রাজনাথ সিং-এর কথায় মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্ত বিশ্বব্যাপী প্রতিযোগিতায় আংশগ্রহণ করতে সাহায্য করবে।