বুধবার সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে আরও কিছুদিন আয়ুপ বেড়েগেল ভারতীয় রণতরী আইএনএস বিরাট-এর। এদিন সুপ্রিম কোর্ট প্রাচিন এই যুদ্ধ জাহাজ ভেঙে ফেলার ওপর স্থহিতাদেশ জারি করেছে। একই সঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট যুদ্ধ জাহাজটি কিনে নেওয়া সংস্থাকে একটি নোটিশও পাঠিয়েছে। তবে ইতিমধ্যেই যুদ্ধজাহাজটির সামনের দিকের বেশ কিছুটা ভেঙে ফেলে হয়েছে ইতিমধ্যেই। 

ভারতীয় রণতরী ভেঙে ফেলে বহির্জাত অংশ হিসেবে বিক্রির নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে দেশের শীর্ষ আদালতে মামলা দায়ের করেছিল এভনিটক মেরিন কনসালট্যান্ট নামের একটি সংস্থা। এই সংস্থাটির আবেদনের ভিত্তিতেই স্থগিতাদের জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্ট নোটিশ পাঠিয়েছে রণতরীর বর্তমান মালিক শ্রীরাম গ্রিন শিপ রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজকে। এই সংস্থাই ভারতীয় নৌবাহিনীর থেকে বাতিল হয়ে যাওয়া এই যুদ্ধজাহাজটি কিনে নিয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে তাদের মতামতও জানতে চাওয়া হয়েছে।  যার ভিত্তিতে গুজরাতের শিপব্রেকার স্ক্র্যাপের জন্য ভেঙে ফেলা থেকে রক্ষা করা গেছে।  আবেদনকারী সংস্থা এই জাহাজে একটি যাদুঘর বানানোর জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে।  গোয়ার কোনও সমুদ্রতীরে এটি রাখার আবেদনও জানান হয়েছে। 

ভারতীয় নৌবাহিনীতে প্রায় ৩০ বছর ধরে যুক্ত ছিল এই যুদ্ধ জাহাজ। ভারতীয় নৌবাহিনীতে এই রণতরী যুদ্ধ হয়েছিল ১৯৮৭ সালে। ২০১৬ সাল পর্যন্ত এটি দায়িত্ব পালন করেছে। ২৩ জুলাই শেষবার যাত্রা করেছিল।  ১৮ হাজার টন পর্যন্ত ওডন বহন করতে পারে এটি। এয়ারক্র্যাফট ক্যারিয়ারটি লম্বায় ২২৫ মিটার লম্বা আর ৪৯ মিটার লম্বা।  ভারতের ইতিহাসে সবথেকে বেশি সময় ধরে এই যুদ্ধজাহাজটি ব্যবহার করা হয়েছিল। গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডেও এর নাম রয়েছে।