দেশে চতুর্থ দফার লকডাউন শেষ হচ্ছে আগামী ৩১ মে। কিন্তু তার আগেই অন্তর্দেশীয় বিমান চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ২৫ মে অর্থাৎ আগামী সোমবার থেকে চালু হচ্ছে দেশে অন্তর্দেশীয় বিমান চলাচল। তবে আগামী তিনমাস বিমানের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন ভাড়া সরকারই ঠিক করবে তা আগেই জানিয়ে দিয়েছেন অসামরিক বিমানমন্ত্রী হরদ্বীর সিং পুরী। এবার ঘরোয়া বিমান পরিষেবা চালু করার গাইডলাইন নিয়ে আলোচনার সময়ে, কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমানমন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী জানিয়ে দিলেন, আরোগ্য সেতু অ্যাপ কোনও যাত্রীকে সবুজ সঙ্কেত দিলে, তাঁকে কোয়ারান্টাইনে পাঠাতে হবে না।

গত বৃহস্পতিবারই অন্তর্দেশীয় বিমান পরিষেবা চালুর ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী।  এই নির্দেশিকার পরই, কেরল, কর্নাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গনা এবং অসম সহ  মোট ৬টি রাজ্য জানায়, অন্তর্দেশীয় বিমান  সেই রাজ্যে প্রবেশ করলে যাত্রীদের কোয়ারান্টাইনে যেতে হবে। পাশাপাশি তামিলনাড়ু এখনই অন্তর্দেশীয় বিমান পরিষেবা চালুর পক্ষে নয় তা কেন্দ্রকে জানিয় দেয়। তারপরেই শনিবার ভার্চুয়াল বৈঠকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, “আরোগ্য সেতু অ্যাপে কোনও যাত্রী সবুজ সঙ্কেত পেলে তাঁর কোয়ারান্টাইনে যাওয়ার প্রয়োজন নেই”।

 

 

এদিকে পুরীর বক্তব্য আসার আগে এদিন কর্ণাটক জানিয়েছিল, সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত ৬টি রাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের ৭ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইন এবং ৭ দিনের হোম আইসোলেশনে থাকতে হবে। বয়স্ক, পুরোপুরি অসুস্থ, শিশু ও অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের ক্ষেত্রে অবশ্য ছাড় দেওয়া হয়েছে। শনিবার হরদীপ সিং পুরী জানান, ঘরোয়া যাত্রীদের কোয়ারান্টাইন নিয়ে অপ্রয়োজনীয় হট্টোগোল করা হচ্ছে। তিনি উল্লেখ করেন, যাঁরা আরোগ্য সেতু অ্যাপে “লাল সঙ্কেত” পাবেন, তাঁদের  বিমানবন্দরে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কথায়, “কোয়ারান্টাইনের মতো একটি বিষয়কে নিয়ে অযথা জলঘোলা হচ্ছে। এটা ঘরোয়া সফর। এখানে কিছু নিয়ম প্রযোজ্য হবে যেগুলি বাসে বা ট্রেনে কার্যকর। যে সমস্ত মানুষেরা করোনা পজিটিভ থাকবেন, তাঁরা বিমানে উঠতে পারবেন না। সরকারি নিয়ম মেনে কোয়ারান্টাইনের বিষয়টিকে মেটাতে হবে”। পাশাপাশি বিমান ভ্রমণের জন্য আরোগ্য সেতু অ্যাপের ব্যবাহর বাঞ্ছনীয় হলেও তা বাধ্যতামূলক নয় বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

করোনা ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়া রুখতে গত মার্চ মাসে দেশজুড়ে লকডাউডন করা হয়, ফলে স্থগিত হয়ে যায় ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক উড়ান পরিষেবা। বর্তমানে অগস্ট পর্যন্ত আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা নিষিদ্ধ করা হলেও পরিস্থিতির উন্নতি হলে তা আগেই শুরু করা হতে পারে বলে ইজ্ঞিত দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী। সেক্ষেত্রে জুনের মাঝামাঝি অবথা জুলাইয়ের শেষেই আন্তর্জাতিক বিমান দেশে চলতে পারে বলে দাবি করছেন হরদীপ সিং পুরী।