আরও চাপে নীরব মোদী। এবার তার স্ত্রী, ভাই, বোনের বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিস জারি করল ইন্টারপোল। এদের মধ্য়ে নীরব মোদীর স্ত্রী অ্য়ামির বিরুদ্ধে অর্থ পাচার বা হাওলাকাণ্ডে জড়িত থাকার মামলা দায়ের করা হয়েছে। সূত্রের খবর, শেষবার আমেরিকায় স্বামীর সঙ্গে দেখা গিয়েছিল অ্য়ামিকে। 

তবে এই প্রথমবার নয়, এর আগেও অ্যামির  বিরুদ্ধে হাওলাকাণ্ডে চার্জশিট দাখিল করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। গত বছরের সেই চার্জশিটে বলা হয়েছে, হাওলার মাধ্য়মে অর্থ পাচার করে নিউ ইয়র্কে  দুটো অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন অ্যামি।  যদিও দুর্নীতি মামলায় এখন ৬৩৭ কোটি টাকার সেই অ্যাপার্টমেন্টগুলি সিল করে দেওয়া হয়েছে।

দেশের আর্থিক দুর্নীতির  ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যাবে, সেই দুর্নীতিকাণ্ডে সবার ওপরে নাম রয়েছে নীরব মোদীর। পিএনবি ব্য়াঙ্ক দুর্নীতিকাণ্ডে ১৩ হাজার ৭০০ কোটি টাকার ঘোটালা করেন তিনি। যার জন্য় বর্তমানে লন্ডনের ওয়ান্ডসওয়ার্থ জেলে ঠাঁই হয়েছে তার।  আপাতত ২৭ অগস্ট পর্যন্ত তাকে  বিচারবিভাগীয় হেফাজতে থাকতে হবে। অনেক দিন ধরেই তাকে ভারতে ফিরিয়ে আনতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে মোদী সরকার। গত ১৯ মার্চ লন্ডন পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। 

ইতিমধ্য়েই পিএনপি দুর্নীতিকাণ্ডে নীরব মোদী  ও মেহুল চোকসির বহু কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত  করেছে ইডি। ইতিমধ্য়েই হংকংয়ে নীরব মোদী ও মেহুল চোকসির সংস্থা থেকে ১৩,৫০ কোটি টাকার গহনা বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি। যার মধ্যে বহুমূল্য হীরে ,পার্ল ছাড়াও আরও গহনা রয়েছে। প্রসঙ্গত, এই পিএনবি কেলেঙ্কারিতেই মেহুল চোকসিকেও ভারতে ফেরত আনতে চাইছে সরকার। চোকসি বর্তমানে অ্যান্টিগুয়ায় রয়েছে।