পেট্রোল বাঙ্কে কাজ করতে গেলে নির্দিষ্ট ইউনিফর্মে পরতে হয়। নির্দিষ্ট ঘরেই মহিলা কর্মচারীরা পোশাক বদলে সেই ইউনিফর্ম পরতেন। গোপনে সেই মুহূর্তের ভিডিও তুলে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে চেন্নাই পুলিশ তিন জনকে গ্রেফতার করেছে। তাদের একজন আবার একটি তামিল টিভি চ্যানেলের সাংবাদিক। আপাতত তাদের ঠাই হয়েছে কেন্দ্রীয় কারাগারে।

গ্রেফতার হওয়া বাকি দু'জন ওই পেট্রোল বাঙ্ক-এরই কর্মচারী। ড্রেসিংরুমে তাদের একজন একটি মোবাইল ফোন ক্যামেরা অন করে রেখেছিল। এইভাবে সে মহিলা কর্মীদের পোশাক বদলানোর ভিডিও তুলেছিল। আশ্চর্যের বিষয় সেই মহিলাদের মধ্যে তার স্ত্রীও ছিল। তাদের এই নোংরামি ধরা পড়ে যায় সেই মহিলা কর্মী তথা ধৃতের স্ত্রীয়ের কাছে। তিনি বিষয়টি স্বামীকে জানিয়ে সেই ভিডিও মুছে দেন এবং রাগে ফোনটি ভেঙেও দিয়েছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তবে গত মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিওটি ছড়াতে থাকে। এরপরই গণতান্ত্রিক মহিলা সমিতি-সহ বিভিন্ন নারী সংগঠনের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে পুলিশ। জানা যায়, ওই দুই কর্মীর একজন ভিডিওটি পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছিল। তারপর-ই ঘটনায় প্রবেশ ঘটে টিভি সাংবাদিকের। তাকে ভিডিওটি পাঠায় ওই ধৃত পেট্রোল বাঙ্ক কর্মী। সাংবাদিকই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে।

এরপরই পুলিশ তিনজনকেই গ্রেফতার করে। তাদের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইন, নারীর বিরুদ্ধে অপরাধ আইন, নারীর অবমাননা আইন-সহ ভারতীয় দণ্ডবিধির বেশ কয়েকটি ধারায় মামলা করা হয়েছে।