সাতমাস কেটে যাওয়ার পরও বিশ্বজুড়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনাভাইরাস। সকলেই চাতক পাখির মতো হাঁ করে তাকিয়ে আছে,, কবে কোনও ভ্যাকসিন বা টিকা আসবে, কবে আসবে কোনও প্রতিশেধক? তবে মহামারির একেবারে প্রথম থেকেই বহু মানুষ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং করোনাভাইরাস মোকাবিলায়, গোমূত্র পান, গায়ে রোদ লাগানো - এরকম হাজার একটা নিজস্ব সমাধান, নিজস্ব প্রতিকার তত্ত্ব দিয়েছেন। এতদিন এই বিষয়ে এগিয়ে ছিলেন গেরুয়া শিবিরের নেতারাই, এখন কর্ণাটকের এক কংগ্রেস নেতাও সেই দলে নাম লেখালেন।

তবে তাঁর করোনা প্রতিকার অবশ্য গোমূত্র পান বা কোনও শাকপাতা খাওয়ার ভেষজ বা আয়ুর্বেদিক নয় তবে সামান্য কিছু ঘরোয়া জিনিস থাকলেই তা বানিয়ে নেওয়া যায়। কর্ণাটকের মেঙ্গলুরু শহর থেকে প্রায় ১২ কিলোমিটার দূরের উল্লাল শহরের কংগ্রেস কাউন্সিলর রবিচন্দ্র গাট্টি-র এই অনবদ্য করোনা প্রতিকারের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

ওই কংগ্রেস কাউন্সিলর জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের অব্যর্থ দাওয়াই হল 'রাম' এবং 'আধা ভাজা ডিম'। তবে যেমন তেমন করে রাম আর ডিম ভাজা খেয়ে নিলাম, তাহলে হবে না। ভাইরাল হওয়া ভিডিও-তে রবিচন্দ্র গাট্টি-কে বলতে শোনা গিয়েছে, ৯০ মিলিলিটার র‌াম-এ এক চা চামচ গোল মরিচের গুঁড়ো যোগ করতে হবে। তারপর আঙুল দিয়ে ভাল করে নেড়ে নিয়ে পান করলেই করোনাভাইরাস জব্দ হবে। আর তার ভ্যানিস হওয়া একেবারে নিশ্চিত করতে হলে এরপর খেতে হবে দুটি আধভাজা ওমলেট।

এখানেই থামেননি ওই কংগ্রেস কাউন্সিলর। তিনি জানান, কোভিড-১৯'এর প্রতিকার হিসাবে বেশ কয়েকটি ওষুধ যাচাই করার পর তিনি বুঝেছেন একমাত্র রাম আর ডিমভাজাই এর বিরুদ্ধে কার্যকর। রাজনীতিবিদ হিসাবে নয়, তিনি এই দাবি করেছেন 'করোনা কমিটির সদস্য' হিসাবে। জানা গিয়েছে গাট্টি, কাউন্সিলর হিসাবে একটি ওয়ার্ড স্তরের করোনাভাইরাস টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য। তাঁরর এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর বিজেপি বলছে কর্নাটকে আরও একটা পাপ্পু পাওয়া গিয়েছে।