কেরালার দেখানো পথকেই অনুসরণ করে, কর্ণাটক সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে  শিক্ষার্থীদের জল খাওয়ার কথা মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য সরকারি স্কুলগুলি দিনে তিনবার ঘণ্টা বাজানো হবে। মূলত ডিহাইড্রেশনের প্রতিরোধেই এই  ব্য়বস্থা নেওয়া হয়েছে ।

আরও পড়ুন, পানীয় জলের বিচারে দেশের সেরা মুম্বই, নীচের সারিতে স্থান কলকাতার

সম্প্রতি প্রাইমারি ও মাধ্যমিক শিক্ষামন্ত্রী সুরেশ কুমার ঘোষণা করেছেন,রাজ্য়ের প্রতিটি সরকারি স্কুলে নির্দিষ্ট সময় অন্তর ওয়াটার বেল বাজানো হবে। অর্থাৎ ওই সময় শিক্ষার্থীদের জল খাওয়ার কথা মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য প্রতিদিন ওই বেল বাজানো হবে। প্রতিদিন সকাল ১০.৩৫, দুপুর ১২টা ও দুপুর ২ টায় সমস্ত সরকারী বিদ্যালয়ে এই  বেল বাজবে। প্রতিটি বিরতি ১০মিনিটের জন্য চলবে। এবং সেই সময় শিক্ষার্থীদের জল পান করা বাধ্যতামূলক করা হবে।

আরও পড়ুন, বালাসাহেব কে কি ছিনতাইয়ের কৌশল বিজেপির, মহারাষ্ট্রে নয়া বিতর্কের ইঙ্গিত

কর্ণাটকে, দক্ষিণ কন্নড় জেলার ইউপিনাঙ্গাদির একটি বেসরকারী স্কুল ইতিমধ্যে এই প্রোগ্রামটি বাস্তবে রূপায়ন করেছে। যেখানে শিক্ষার্থীদের ১০ মিনিটের তিনবার বিরতি দেওয়া হয়। শিক্ষামন্ত্রী সুরেশ কুমার আরও জানিয়েছেন যে, কেরল সরকারের এই উদ্যোগটি ভাল। তিনি এই কর্মসূচিটি শীঘ্রই বাস্তবায়নের বিষয়ে নজর দেওয়ার জন্য, জনশিক্ষা অধিদফতরের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন। ডিহাইড্রেশনের কারণে অনেকধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে। সবাই মিলে যদি এটি প্রতিরোধ করতে পারে তবে তা অবশ্যই করা উচিত।