খাড়িতে ভেসে উঠল দেহ। খোঁজ নিয়ে জানা গেল, তিনি সাতবার  জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়কের ভাই। এমনকি এ-ও জানা গেল, নিদারুন অর্থ সঙ্কটে ভুগছিলেন তিনি। সেই কারণেই সম্ভবত আত্মঘাতী হয়েছেন তিনি। এদিকে, এই ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় এখন চাঞ্চল্য় দেখা দিয়েছে।

সম্প্রতি, কোচিতে একটি খাড়িতে উদ্ধার হয়েছে সঙ্গীতশিল্পী যেসু দাসের ভাইয়ের দেহ। আর তাকে ঘিরেই চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে। যেসু দাসের ভাই কেজে জাস্টিন কয়েকদিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। একটি মিসিং ডায়েরিও করা হয়েছে।  এদিন কোচির ডিপি ওয়ার্ল্ডস ইন্টারন্যাশানাল কনটেইনার টার্মিনালের কাছে এক খাড়িতে ভেসে উঠেছে  জাস্টিনের দেহ। গত ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, আত্মহত্যাই করেছেন জাস্টিন। বেশ কিছুদিন ধরে তিনি নাকি নিদারুন আর্থিক কষ্টে ভুগছিলেন বলে জানা গিয়েছে। যদিও তদন্ত চলছে।  এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত জেসু দাসের  কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

এদিকে যেসু দাসের ভাইয়ের দেহ উদ্ধার হওয়ার রীতিমতো  চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে। প্লেব্য়াকের জন্য় মোট সাতবার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন। পেয়েছেন পদ্মভূষণ ও পদ্মবিভূষণ। কেরলের একমাত্র অফিসিয়াল সিঙ্গার হিসেবে স্বীকৃত যেসু দাস। ক্য়াথলিক পরিবারেরর সন্তান হয়েও নিষ্ঠার সঙ্গে গেয়ে গিয়েছেন হিন্দু ভক্তিগীতি। তাঁর কণ্ঠে, 'গোরি তেরা গাঁও বড়া প্য়ায়ারা' আজও সুপারহিট।

এদিকে জানা গিয়েছে, উদ্ধার করার পর জাস্টিনের দেহ এর্নাকুলাম জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পোস্টমর্টেম হয়েছে। কেন মৃত্য়ু, তা নিয়ে নিশ্চিত হতে পুলিশ তদন্ত চালাচ্ছে।