কোরানাভাইরাসের মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে খাদের কিনারায় পৌঁছে যাওয়া ভারতীয় অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ গত সপ্তাহেই ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ ৫ দিন ধরে সেই আর্থিক প্যাকেজে কোনা খাতে কত অর্থ প্রদান করা হচ্ছে তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। কেন্দ্রের সেই পদক্ষেপের সহায়ক আর্থিক পরিবেশ গড়ে তুলতে শুক্রবার ফের নতুন কিছু ঘোষণা করলেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। 

করোনাভাইরাসের আবহে তৃতীয় সাংবাদিক সম্মেলন থেকে রেপো রেট ৪০ বেসিস পয়েন্ট কমিয়ে ৪ শতাংশ করার ঘোষণা করলেন রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার গর্ভনর শক্তিকান্ত দাস। একইসঙ্গে রিভার্স রেপো রেটও কমিয়ে ৩.৩৫ শতাংশ করেছে রির্জাভ ব্যাঙ্ক ইফ ইন্ডিয়া। দেশের বৃদ্ধির গতি ত্বরাণ্বিত করতে ২৭ মার্চ রেপো রেট ৭৫ বেসিস পয়েন্ট কমানোর ঘোষণা করে আরবিআই। এরপর গত এপ্রিলে অপ্রত্যাশিতভাবে রিভার্স রেপো রেট ৩.৭৫ শতাংশ কমায় আরবিআই। এবার ৪.৪ শতাংশ থেকে ফের কমল রেপো রেট। 

একই সঙ্গে ঋণ গ্রহীতাদের স্বস্তি দিয়ে আরও তিন মাসের জন্য ইএমআই  স্থগিতেও অনুমোদন দেয় আরবিআই। অর্থাৎ আগে যেটা মার্চ থেকে মে করা ছিল সেটা আরও তিন মাস ১ জুন থেকে ৩১ অগাস্ট বাড়িয়ে দেওয়া হল।। এর ফলে ব্যাঙ্ক এবং অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের জন্য নতুন করে ১ জুন থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত (তিন মাস) ইএমআই স্থগিত করতে পারে।

এদিকে চলতি বছরের মাঝামাঝি দেশে মুদ্রাস্ফীতি কমতে পারে বলে জানিয়েছেন আরিবআই গভর্নর। তিনি জানান, দেশে চাহিদায় ঘাটতি দেখা দিয়েছে। দেশে বৃদ্ধির হার নিয়ে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ‘মুদ্রাস্ফীতির কারণে চাহিদা আরও ধাক্কা খাবে।’ এই অবস্থায়  ২০২০-২১ সালে দেশের জিডিপি শূন্যেরও নীচে নামবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন শক্তিকান্ত দাস। পরিস্থিতি সামলাতে ৪ দফা পদক্ষেপ করবে আরবিআই,  বলেন আরবিআই গভর্নর।