সোমবার সিএএপন্থীদের সঙ্গে বিরোধীদের সংঘর্ষে মত্যু  হয়েছে দিল্লি পুলিশের হেড কনস্টেবল রতন লালের। অকালে বাবাকে হারাতে হয়েছে তিন সন্তানকে। রাজস্থানের শিকারের বাসিন্দা রতন ১৯৯৮ সালে যোগ দিয়েছিলেন দিল্লি পুলিশে। বর্তমানে গোকুলপুরীর এসিপি অফিসে অর্মরত ছিলেন তিনি। বাড়ির ছেলের হঠাৎ চলে যাওয়ার কথা বলার ক্ষমতা হারিয়েছেন পরিবারের বাকি সকলে। 

 

সিএএ বিরোধী ও সমর্থকদের সংঘর্ষে দিল্লির মউজপুরের গোকুলপুরির কাছে মৃত্যু হল দিল্লি পুলিশের হেড কনস্টেবলের। পুলিশ সূত্রে খবর, ছোঁড়া পাথরের আঘাতেই রতন লালের মৃত্যু হয়। এদিকে পাথরের আঘাতে গুরুতর জখম ডিসিপি পদমর্যাদার এক পুলিশ কর্মী। সংঘর্ষে ইতিমধ্যেই নিহতের সংখ্য়া বেড়ে হয়েছে ৭। আহতের সংখ্যা শতাধিক।

আরও পড়ুন: সিএএ নিয়ে অশান্ত দিল্লি, নিজের দলের বিধায়কের বিরুদ্ধেই ক্ষোভ উগরালেন গম্ভীর

আরও পড়ুন: উত্তপ্ত দিল্লি শান্ত করতে শাহ-কেজরির বৈঠক, প্রয়োজনে রাজধানীতে নামবে সেনা

জেটিবি হাসপাতালের তরফে বলা হয়েছে, মাথায় জখম ছিল রতন লালের। হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়। সোমবারের সংঘর্ষে আহত হয়েছে আরও ১০ জন পুলিশকর্মী। নিহত পুলিশকর্মীদের পরিবারকে সাহায্যে ইতিমধ্যে অর্থ সাহায্যের কাজ শুরু করেছে দিল্লি পুলিশ। এদিন রতন লালকে শেষ শ্রদ্ধা জানান দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বৈজাল ও পুলিশ কমিশনার অমূল্য পট্টনায়েক।