বুধবার রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব (সংশোধনী)  বিল ২০১৯, পাস হওয়ার পরই এই বিলের বিরোধিতা করে পদত্যাগ করলেন মহারাষ্ট্র ক্যাডারের এক আইপিএস অফিসার। মহারাষ্ট্রের রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের বিশেষ আইজিপি পদে থাকা আবদুর রহমান, বুধবার রাতেই জানান, এই বিল 'স্পষ্টতই সাম্প্রদায়িক এবং অসাংবিধানিক'। তাই এর প্রতিবাদ হিসাবে তিনি সরকারি চাকরি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

গত অক্টোবর মাসেই তিনি স্বেচ্ছাবসর নিতে চেয়েছিলেন আপিএস আবদুর রহমান। কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক তাঁর সেই আবেদন গ্রহণ করেনি। বুধবার মুম্বইয়ে তিনি জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার থেকে আর অফিসে যাবেন না। তাঁর মতে নাগরিকত্ব বিলটি ভারতের ধর্মীয় বহুত্ববাদের বিরোধী। তিনি সকল 'ন্যায়বিচারপ্রিয় মানুষ'কে গণতান্ত্রিক উপায়ে এই বিলের বিরোধিতা করার আহ্বান জানিয়েছেন। তাঁর মতে ভারতের মৌলিক বৈশিষ্ট্যের পরিপন্থী এই বিল।

রহমান তাঁর বিবৃতিতে আরও বলেছেন, সংসদে বিলটির আলোচনা চলার সময়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ভুল তথ্য, বিভ্রান্তিকরভাবে তথ্য এবং ভুল যুক্তি খাড়া করেছেন। তিনি ইতিহাসকে বিকৃত করেছেন। রহমানের অভিযোগ, এই বিল আনার পিছনে মূল লক্ষ্য মুসলমান সমম্প্রদায়ের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি করা এবং ভারতকে জাতির ভিত্তিতে বিভক্ত করা।

এই আইপিএস অফিসার আরও জানান, এই বিল সংবিধানের ১৪ নম্বর ধারা লঙ্ঘন করেছে। ধর্মের ভিত্তিতে বৈষম্যমূলক আইন সংবিধানের মূল বৈশিষ্ট্যের পরিপন্থী। ২০ কোটি ভারতীয় মুসলমানের উপর চাপ সৃষ্টি করতেই এই বিল আনা হয়েছে।