দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল  সায়েন্স বা এইমসে ভর্তি রয়েছেন দেশের দুবারের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। জ্বর ও বুকে ব্যাথা নিয়ে রবিবার রাতে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। তবে বর্তমানে তাঁর অবস্থা স্থিতিশালী বলেই আশ্বস্ত করছেন চিকিৎসকরা। হাসপাতালে চিকিৎসকদের কড়া পর্যবেক্ষণে রয়েছেন তিনি। 

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে জানান হয়েছে, "তিনি এখন ঠিক রয়েছেন। গতকাল ওষুধ থেকে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরি হওয়ায় তাঁর জ্বর আসে, সেকারণে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। বর্তমানে তিনি পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।"

রবিবার রাত ৮.৪৫ মিনিটে বর্ষীয়াণ কংগ্রেস নেতাকে এইমসে নিয়ে আসা হয়। হাসপাতালে কার্ডিও নিউরোসায়েন্স (সিএনএস) টাওয়ারে তাঁকে ভর্তি করা হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। এদিকে ৮৭ বছরের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়তেই তাঁর সুস্থতা কামনা শুরু করেন বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা।

মনমোহন সিং-এর আরোগ্য কামনা করে ট্যুইট করেন দিল্লির প্রধানমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। গোটা দেশ আপনার জন্য প্রার্থনা করছে, আশা করি তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন। ট্যুইটে লেখেন কেজরি।

 

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর অসুস্থতার খবর পেয়ে ট্যুইট করেন কর্ণাটকে কংগ্রেস দলের প্রধান ডিকে শিবকুমার। শিবকুমার লিখেছেন, ‘ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং-এর স্বাস্থ্য নিয়ে চিন্তায় আছি। আমার মতো কয়েক কোটি ভারতীয় তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করছেন।’

 

শিবকুমারের মত বর্ষীয়াণ নেতার আরোগ্য কামনা করে ট্যুইট করা হয়েছে জাতীয় কংগ্রেসের তরফেও।

 

তিরুবন্তপুরমের কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুরও দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর আরোগ্য কামনা করে ট্যুইট করেন।

 

জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্য তথা ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ওমর আবদুল্লাও মনমোহন সিং-এর আরোগ্য কামনা করে বার্তা দেন।

 

একই পথে হাঁটতে দেখা গেছে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের ছেলে তথা শিবনেতা নেতা আদিত্য ঠাকরেকেও। 

 

বারামতীর সাংসদ তথা এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারের কন্যা সুপ্রিয়া সুলেও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর দ্রুত আরোগ্য কামনা করে ট্যুইট করেন।