নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য পুরনো নথি চেয়ে কোনও নাগরিককে হয়রান করা হবে না। দেশজুড়ে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে হিংসাত্মক বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ার মধ্যেই এমন আশ্বাস দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। সংবাদসংস্থার খবর অনুযায়ী, শুক্রবার এমনই দাবি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি- র নামে পুরনো নথি চেয়ে দেশের নাগরিকদের হেনস্থা করা হবে বলে অভিযোগ বিরোধীদের। এমন আশঙ্কা জন্মেছে সাধারণ মানুষের মনেও। অনেকেরই ভয়, বাবা- মা বা পূর্বসূরীদের ১৯৭১ সালের আগের জন্ম শংসাপত্র দেখাতে না পারলে নাগরিকত্ব প্রমাণ করা মুশকিল হবে। যদিও এমন আশঙ্কা অমূলক বলেই দাবি করেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। 

পর পর বেশ কয়েকটি টুইট করে এ দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে এক মুখপাত্র জানান, যাঁরা নিরক্ষর এবং কোনও কাগজপত্র নেই, তাঁদেরকেও স্থানীয়ভাবে নাগরিকত্বের তথ্যপ্রমাণ পেশ করার জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ দেওয়া হবে। প্রয়োজনে তাঁরা সাক্ষীও জোগাড় করে প্রমাণ করতে পারবেন যে তাঁরা এ দেশেরই বাসিন্দা।

টুইটবার্তায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের মুখপাত্র জানান, ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য জন্মের তারিখ বা স্থান সংক্রান্ত যে কোনও নথি পেশ করলেই হবে। এই ধরনের সহজলভ্য নথির এমন একটি তালিকা তৈরি হবে, যাতে একজনও ভারতীয় নাগরিকের অকারণ হেনস্থা না হয়।' 

এর পাশাপাশি স্পষ্টভাবে ওই মুখপাত্র জানিয়ে দেন, ১৯৭১ সালের আগে বাবা- মা বা পূর্বপুরুষদের কোনও পরিচয়পত্র, জন্ম শংসাপত্রের মতো নথি নাগরিকত্বের প্রমাণ হিসেবে পেশ করার প্রয়োজন পড়বে না। দেশজুড়ে যে বিক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়ছে, তা নিয়ন্ত্রণে আনতেই আমজনতাকে কেন্দ্রের এই আশ্বাস বলে মনে করা হচ্ছে।