পাঁচ দিন ধরে গণধর্ষণ করা হল এক নাবালিকাকে। যে ছ' জন মিলে এই নির্যাতন চালাল, তাদের মধ্যে তিনজনই আবার নাবালক। নৃশংস এই ঘটনা ঘটেছে অন্ধ্রপ্রদেশের অঙ্গল শহরে। ইতিমধ্যেই সব অভিযুক্তকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তদের মধ্যে একজন গত ১৭ জুন ওই নাবালিকার সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতায়। ১৬ বছরের ওই কিশোরী তখন অঙ্গল শহরের আরটিসি বাস স্টপে অপেক্ষা করছিল। ওই অভিযুক্তকে বিশ্বাস করেই কিশোরী তার সঙ্গে একটি ঘরে যায়। সেখানে অভিযুক্তের আরও পাঁচ বন্ধু অপেক্ষা করছিল। এর পর পাঁচ দিন ধরে ওই কিশোরীকে গণধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। 

জানা গিয়েছে, ওই নির্যাতিতা গুন্টুর জেলার বাসিন্দা। পাঁচ দিনের অত্যাচারের পরে কোনওক্রমে অভিযুক্তদের ডেরা থেকে পালিয়ে আসে সে। এর পরে কর্তব্যরত দুই পুলিশকর্মীর নজরে পড়ে ওই কিশোরী। তাঁরাই তাকে উদ্ধার করে। নির্যাতিতাকে সঙ্গে সঙ্গেই হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসার বন্দোবস্ত করা হয়। তার অবস্থা স্থিতিশীল বলেই জানা গিয়েছে। 

ওই কিশোরীর অভিযোগের ভিত্তিতেই এর পরে অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়। শনিবার ভোররাতের মধ্যে সব অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃতদের বিরুদ্ধে পকসো আইন এবং ভারতীয় দণ্ডবিধির উপযুক্ত ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ঘটনায় রাজ্যে নারীদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠলেও দোষীদের কড়া শাস্তির আশ্বাস দিয়েছে অন্ধ্র সরকার।