নোটবন্দির পরে দু’হাজার টাকার নোট ইস্যু করা হলেও  কেন্দ্রীয় সরকার তা তুলে দেবে বলে জল্পনা ছিল। ২০১৯-২০ আর্থিক বর্ষে একটিও ২ হাজারের নোট ছাপানো হয়নি বলে সেই জল্পনা আরও উস্কে দেয়  রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। এই আর্থিক বর্ষে সরকারের তরফে তাদের ২ হাজারের নোট ছাপানোর বিষয়ে কোনও নির্দেশ দেয়নি বলেও জানানো হয়েছে। সম্প্রতি তাদের তরফে প্রকাশিত বার্ষিক রিপোর্টে এই কথা উল্লেখ করার পাশাপাশি গত তিনটি আর্থিক বর্ষে এই নোটের সরবরাহ ক্রমশ কমেছে বলেও জানিয়েছে দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্ক। এরমধ্যেই সামনে এল দু’হাজার টাকার নোট নিয়ে মোদীর ভাবনা। জানা গেল দু’হাজারের নোট আদৌ নাকি ছাপাতে চাননি মোদী।

২০১৬ সালে নোটবন্দির পরে দু’হাজার টাকার নোট ছাপার পক্ষে মত ছিল না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। কিন্তু গরিষ্ঠ মতকে মান্যতা দিতেই সিদ্ধান্তটির পক্ষে সায় দেন তিনি।  জানালেন, নরেন্দ্র মোদীর প্রাক্তন প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি নৃপেন্দ্র মিশ্র। ২০১৪ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর প্রধান সচিব ছিলেন  নৃপেন্দ্র মিশ্র। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে নরেন্দ্র মোদির ৭০তম জন্মদিনে প্রকাশিত এক কলামে তিনি একথা জানিয়েছেন।  নৃপেন্দ্র বলেন, ২০১৬-য় নোট বাতিলের প্রস্তুতির সময় দু’হাজারের নোট ছাপানোয় মোদীর সায় ছিল না। কিন্তু বড় অঙ্কের নোট দ্রুত ছাপাতে পারলে বাজারে নগদের জোগান বাড়ানো যাবে বলে অনিচ্ছাসত্ত্বেও সে পরামর্শ তিনি মেনে নেন।

দু’হাজার টাকার নোট এমনিতেই বাজারে কমে আসছে। নতুন নোট ছাপানোও বন্ধ। ধীরে ধীরে দু’হাজারের নোট বাজার থেকে তুলে নেওয়া হবে কি না, তা নিয়ে প্রায়ই জল্পনা চলে। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রীর প্রাক্তন প্রিন্সিপাল সেক্রেটারির এই দাবি সেই জল্পনাকে কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিল।