বিবাহ বহির্ভুত সম্পর্কের জেরে স্বামীকে খুন করল স্ত্রী। এমন নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্জাবের তার্ন তারান গ্রামে।  সূত্রের খবর অভিযুক্ত মহিলার দু'জন সন্তানও রয়েছে। তাঁদের দাবি এমন জঘন্য অপরাধের জন্য নিজের মায়েরই ফাঁসির সাজা দাবি করল ওই দুই সন্তান।

রবিবার রাতে অভিযুক্ত সিমরান কওর স্বামীকে হত্যা করার জন্য আগে থেকেই পরিককল্পনা করে রেখেছিল। সেইমতো রাতে তাঁর স্বামী বাড়ি ফেরার পর তাঁর খাবারের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে দেয় ওই মহিলা। কিন্তু তাঁর স্বামীর মৃত্যু নিয়ে একপ্রকার অনিশ্চয়তায় ভুগছিলেন তিনি। আর সেই কারণেই তাঁকে ওই বিষ মেশানো খাবার খাওয়ানোর পরও তাঁর মৃত্যু নিশ্চিত করতে তাঁকে শ্বাসরোধ করে খুন করেন তিনি।

আর তারপরই তার দুই সন্তানকে নিজের বাবার বাড়িতে একা ফেলে রেখেই নিজের প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যান ওই মহিলা। সূত্রের খবর স্বামী রাজপ্রীত সিং-এর সঙ্গে ১২ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল তাঁর। দুই সন্তান নিয়ে ভরা সংসার ছিল তাঁদের। কিন্তু লাভপ্রীত সিং লাভলি নামে এক যুবকের সঙ্গে বিবাহ বহির্ভুত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন সিমরান। তারপর থেকেই শুরু যত বিপত্তি। সিমরানের পরিবারের তরফ থেকেও বারবার এই সম্পর্ক থেকে তাকে বেরিয়ে আসার কথা বলা হলেও কোনও লাভ হয়নি। 

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে সিমরানের দুই সন্তানের হাত ধরেই। তারাই প্রথম এই বিষয়টি তাঁর দাদুকে জানায় যে, তাদের মা তাদের বাবাকে দড়ি দিয়ে শ্বাসরোধ করে মেরে ফেলেছে।  বিষয়টি জানতে পেরেই  রাজপ্রীতকে উদ্ধার করতে তৎপর হয়ে ওঠে পুলিশ। ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাঁকে গুরুতর অবস্থায় খুঁজে পান তাঁরা। তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে সে। এমন নৃশংস অপরাধের জন্য তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় দায়ের করা হয়েছে মামলা। বাবাকে খুন করার জন্য মায়ের মৃত্যুদণ্ড দাবি করেছে পিতৃহারা দুই সন্তান।