কাশ্মীরে তৈরি হয়েছে অপ্রবিত্র বৈষয়িক মহাজোট বলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। পাশাপাশি কাশ্মীরে বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিকদলগুলির জোটকে গুপকার গ্যাং বলে বিদ্রুপ করেন তিনি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এই মন্তব্যের পরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন এককালে বিজেপিরই জোট সঙ্গী মেহবুবা মুফতি। তিনি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে পাল্টা জবাব দিয়ে বলেন বিজেপি ক্ষমতার জন্য সবকিছুই করতে পারে। ক্ষমতায় থাকার জন্যই জোট বাধতে পারে। কিন্তু তাঁরা জাতীয় স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন বলেও দাবি করেন। 

সোল্যাল মিডিয়ায় একটি বার্তা দিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী তথা অমিত শাহ জম্মু ও কাশ্মীরের বিজেপি বিরোধী দলের জোটকে গুফকার গ্যাং বলে বিদ্রুপ করেন। তিনি বলেছিলেন বিরোধী দলের এই জোট ভূস্বর্গে সন্ত্রাস ও আশান্তি ফিরিয়ে আনতে চায়। তারা দলিত, মহিলা আর আদিবাসীদের অধীকার খর্ব করতে তৎপর। যা ৩৭০ ধারা বিলোপের সঙ্গে সঙ্গে নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সোশ্যাল মিডিয়ায় এই মন্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি বলেন, টুকড়ে টুকড়ে গ্যাংএর মতই তাঁদের গুফকার জোটকে দেশবিরোধী হিসেবে তুলে ধরতে চাইছে।   পাশাপাশি তিনি বলেন, তাঁদের দেশবিরোধী হিসেবে তুলে ধরতে গুফকার গ্যাং শব্দটি ব্যবহার করা হচ্ছে। তিনি প্রশ্ন করেছেন নির্বাচনে জোটবেঁধে লড়াই করাও এখনও দেশবিরোধী কাজের সমতুল কিনা। 


মেহবুবা মুফতির সুরে সুর মিলিয়ে কাশ্মীরের আরও এক নেতা ওমর আব্দুল্লাহ বিজেপিকে আক্রামণ করেন। তিনি বলেন গণতান্ত্রিক পদ্ধতি মেনে জম্মু ও কাশ্মীরের নেতাদের নির্বাচনে লড়াই করার জন্যও আটক করা যেতে পারে। পাশাপাশি তাঁদের দেশবিরোধী তকমাও দেওয়া যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি তিনি বলেছেন তাঁরা কোনও গ্যাং-এর সদস্য নন। তাঁরা একটি রাজনৈতিক জোট। নির্বাচনে লড়াই করার জন্য তাঁরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। পাশাপাশি তিনি তাঁদের জোট সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক ও বৈধ বলেও দাবি করেছেন ওমর আব্দুল্লাহ। তিনি আরও বলেন যাঁরা বিজেপির বিরোধিতা করবে তাঁদের সবাইকে দূর্নীতিবাজ ও দেশবিরোধী হিসেবে চিহ্নিত করা হবে। 


জম্মু কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারা লোপের আগেই  কাশ্মীরের রাজনৈতিক নেতৃত্বকে আটক করা হয়েছিল। চলতি বছর তাঁরা ছাড়া পেয়েছেন। কিন্তু তারপরেও তাঁদের গতিবিধি কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রিত। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে আসন্ন নির্বাচনে ভূস্বর্গের বিজেপি বিরোধী সমস্ত রাজনৈতিকদলগুলি ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাঁরা গুফকার জোট নামেই ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। তাঁদের এই জোটকেই বিদ্রুপ করে গুফকার গ্যাং বলে সম্বোধন করেছেন অমিত শাহ।