মাস্ক পরাটা একান্ত জরুরী। গত কয়েকমাসে এই একটা বাক্য বারে বারে সকলের সামনে উঠে এসেছে নানাভাবে। কিন্তু সকলের মুখে মাস্ক কোথায়! মাস্ক থাকলেও একটি সার্জিক্যাল মাস্ক দিয়েই দিনের পর দিন কাজ চালিয়ে নিচ্ছেন অনেকে। যা আদপে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক। আবার একশ্রেণী এমনও রয়েছেন যাঁরা মাস্ক কিনতে চাইলেও তা কুলিয়ে উঠতে পারছেন না, কারণ মাত্রা ছাড়া দাম। এন৯৫ মাস্কের প্রয়োজন, কিন্তু তাঁর আকাশ ছোঁয়া দাম। যা নিম্নমধ্যবিত্তের সাধ্যের বাইরে। 

এবার এই সমস্যার সমাধানে এগিয়ে এলো মহারাষ্ট্র সরকার। বেধেঁ দিলেন মাস্কের দাম। না, মাস্ক নিয়ে ব্যবসা নয়। এটি এখন অত্যন্ত প্রয়োজনীয় জিনিস। তাই মাস্কের দাম বেঁধে দিল সরকার। মহারাষ্ট্রে এবার মাস্ক পাওয়া যাবে মাত্র তিন টাকায়।  যাতে সকলেই তা কিনে নিজের সংগ্রহে রাখতে পারে। শুধু তাই নয়। একধাক্কায় কমে গেল এন ৯৫ মাস্কেরও দাম। তার দাম করতে হবে ১৯ থেকে ৪৯ টাকার মধ্যে। 

 

দুই বা তার বেশি লেয়ারের মাস্ক ৩ থেকে ৪ টাকায়। করোনার কোপ থেকে বেড়িয়ে এবার ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার পথে। তবে দেশে দৈনিক সংক্রমণের হার কমলেও মহারাষ্ট্র এই বিষয় কোনও রকমের ঢিলে দিতে নারাজ। তাই সকলেই যাতে এই গোষ্ঠী সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচে, সেই মর্মেই এবার মাস্কের দাম বেঁধে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। এই খবর সামনে আসতেই তা প্রশংসা কুড়োয় নেটমহলে।