একুশ দিনের লকডাউন ঘোষণা করে মোদী বলেছিলেন, "জান বাঁচলে তবে জাহান বাঁচবে"। এবার লকডাউনের প্রায় ছ-দিন কেটে যাওয়ার পর মন কি বাত অনুষ্ঠানে  এসে দেশবাসীর কাছে 'দুর্ভোগ'য়ের জন্য় ক্ষমা চেয়ে নিয়ে বললেন, "এছাড়া আর কোনও রাস্তা ছিল না।"

এদিন সকাল থেকেই টানটান উত্তেজনায় ছিল গোটা দেশ। মন-কি-বাত-এ এসে কী বলবেন মোদী? তবে কি  লকডাউনের মেয়াদ আবার বাড়বে? নাকি নতুন কোনও ঘোষণা করবেন মোদী, যার জেরে বাড়বে দুর্ভোগ? যদিও সব জল্পনায় জল ঢেলে দিয়ে সকাল এগারোটায় তিনি প্রথমেই দেশের লোকের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিলেন। লকডাউনের জন্য় যে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে আপামর ভারতবাসীকে, তার জন্য়ই ক্ষমা চেয়ে নিয়ে মোদী বললেন,  "এ ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না"

নাম না-করে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ, বিশেষ করে ইতালির প্রসঙ্গে বললেন, "অনেক বড় বড় দেশ বিষয়টাকে হাল্কা করে নিয়েছিল। আর তাদের তার খেসারত দিতে হচ্ছে। তাই এই করোনার  সংক্রমণ ঠেকাতে এই লকডাউন খুব জরুরি ছিল।"

এদিন মন-কি-বাত-এ এসে দুজন করোনাজয়ী সঙ্গে ফোনে কথা বলেন মোদী। তাঁরা তাঁদের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিয়ে বলেন, আইসোলেশন ওয়ার্ড মানেই কিন্তু জেলখানা নয়। কেউ আবার বলেন, একে-একে তাঁর পরিবারের বাকিরাও আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায়। কিন্তু এখন সব সুস্থ। তাঁদের এই অভিজ্ঞতা সোশাল মিডিয়ার ভাইরাল করার পরামর্শ দেন মোদী।

এরপর দুজন চিকিৎসকের সঙ্গেও ফোনে কথা বলেন মোদী। তাঁদের অভিবাদন জানান। সেইসঙ্গে কুর্নিশ জানান নার্স ও অন্য়ান্য় স্বাস্থ্য়কর্মীদের। আবার সতর্ক করে দিয়ে বলেন, যাঁরা হোম কোয়ারিন্টিনে রয়েছেন, কোথাও কোথাও তাঁদের হেনস্তা করে হচ্ছে, যা কখনওই কাম্য় নয়।