প্রতি বছরের নিয়মই বজায় থাকল। 'আম আদমি'-র মাঝেই যোগ দিবসের যোগাভ্যাস সারলেন নরেন্দ্র মোদী। তবে এবার ডেস্টিনেশন অন্য। রাঁচির প্রভাত তারা ময়দানে প্রায় ৩০ হাজার মানুষের মধ্যে সকাল  ধ্যানে মগ্ন হলেন প্রধানমন্ত্রী। 
 
প্রধানমন্ত্রী পা রাখতে চলেছেন, স্বাভাবিক ভাবেই রাঁচির রাস্তাঘাট হোর্ডিং ব্যানারে ভরে গিয়েছে দিন কয়েক আগে থেকেই।  নিরাপত্তা বজ্র আঁটুনি চারদিকে। তারই মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যোগ দিবস পালন করার উৎসাহে পায়ে পায়ে চলে এলেন আট থেকে আশি সকলের। 

আরও পড়ুনঃ ফের যোগ শেখালেন মোদী, যোগ দিবসের আগেই এল অ্যানিমেশন

প্রসঙ্গত প্রতি বছরই যোগ দিবস পালন করেন প্রধানমন্ত্রী। ২০১৫ সালে ৩৫৯৮৫ জন মানুষের উপস্থিতিতে যোগ দিবস প্রথম পালন করেন নরেন্দ্র মোদী। গত বছর ২১ জুন যোগ দিবসের ডেস্টিনেশন ছিল দেরাদুন। সে বছর তাঁর উদ্যোগে সামিল হয়েছিল ৮৪টি দেশের বিশিষ্টজন। সেবার দিল্লির রাজপথে ৩৫ মিনিটে প্রায় ২১ রকম আসন করে দেশবাশীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন  প্রধানমন্ত্রী।  সেখানে প্রায় ৫০ হাজার লোকের সঙ্গে যোগে মেতেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। 

এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'এবার আমি যোগকে শহর থেকে গ্রামে নিয়ে যেতে চাই। আমি চাই প্রান্তিক মানুষের জীবনের সঙ্গে যোগ জুড়ে যাক এই যোগ। কারণ তাঁরাই অসুখের কারণে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পান।' একই সঙ্গে গণমাধ্যমকেও প্রধানমন্ত্রী ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন যোগকে ছড়িয়ে  দিতে সদর্থক ভূমিকা পালন করার জন্যে।  

প্রসঙ্গত এদিন যোগগুরু রামদেবে সংস্থা পতঞ্জলি এক লক্ষ গ্রামে যোগ দিবস উদযাপন করছে।  পঞ্চম যোগ দিবসের মূল থিম হল জলবায়ু পরিবর্তন। 

দিন কয়েক আগেই নিজের টুইটে আসনের কার্যকারিতার কথাও বিস্তারে লিখেছেন মোদী। লিখেছেন, 'আগামী ২১ জুন আমরা যোগ দিবস পালন করব।  আমি সকলকে যোগকে জীবনের অংশ বানিয়ে তোলার জন্যে অনুরোধ করি। একে অন্যের অনুপ্রেরণা হয়ে উঠুক সকলে। কারণ জীবনে যোগের গুরুত্ব অপরিহার্য।' একটি অ্যানিমেশান ভিডিও-ও শেয়ার করেন তিনি।