হরিয়ানা ও মহারাষ্ট্রের  নির্বাচনকেন্দ্রগুলোতে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে গিয়েছে। সকাল থেকে ভোট দেওয়ার জন্য লম্বা লাইন দেখতে পাওয়া গিয়েছে। এখন দেখার বিষয়, লোকসভা নির্বাচনের জয় বিজেপি ধরে রাখতে পারবে না কি বিরোধীরা এই জয় ছিনিয়ে নেবে। মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানায় নির্বাচন নিয়ে মোদী বার্তা দিয়েছেন। সেখানে তিনি আশা করেছেন এবার নির্বাচনে আরও বেশি করে  দেশের যুব সমাজ অংশগ্রহণ করবেন। 

সোমবার সকালে মোদী জানিয়েছেন,  'হরিয়ানা এবং মহারাষ্ট্রে  নির্বাচন শুরু হয়ে গিয়েছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে উপনির্বাচন শুরু হচ্ছে। গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠার জন্য সকলকে ভোট দেওয়ার জন্য আবেদন করছি।  দুই রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন ও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে উপনির্বাচনে ব্যাপক পরিমাণে ভোট পড়বে, এই আশা আমি করছি। চলতি নির্বাচনে যুব সমাজ ব্যাপকভাবে অংশ নেবে বলে আমার আশা।'

মহারাষ্ট্রে ৮.৯ কোটির বেশি ভোটার ৩,২৩৯ জন প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারণ করবে। পাশাপাশি ১.৮ কোটির বেশি ভোটার ১,১৬৯ জন প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারণ আজ করতে চলেছে।  ছত্তিশগড়ের মাওবাদী অধ্যুষিত চিত্রকোট বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হবে। এছাড়াও গুজরাতের ছয়টি বিধানসভা কেন্দ্রে সোমবার উপনির্বাচন শুরু হয়ে গিয়েছে। নির্বাচন শুরু হওয়ার আগে আদিত্য ঠাকরে সিদ্ধিবিনায়ক মন্দিরে পুজো দেন বলে জানা গিয়েছে। তেলেঙ্গানায় একটি বিধানসভা নির্বাচন কেন্দ্রে উপনির্বাচন হচ্ছে। 

মুম্বইয়ের অভিজাত বান্দ্রা এলাকায় সকাল থেকে ভোট দেওয়ার জন্য লম্বা লাইন দেখতে পাওয়া গিয়েছে। হরিয়ানা মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের সকল ভোটারকে এই নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ভোট দেওয়া আধিকার, আমাদের কর্তব্য। সকলের এই নির্বাচনে অংশ নেওয়া উচিত।