বাকি মাত্র দুই দিন। তারপরই ডিসকভারি চ্যানেলের জনপ্রিয় শো 'ম্য়ান ভার্সাস ওয়াইল্ড'-এ দেখা যাবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। তার আগে সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে ওই টিভি শো-এর সঞ্চালক বেয়ার গ্রিলস নরেন্দ্র মোদীকে 'শান্ত ও প্রফুল্লতার প্রতিমূর্তি' বলে শংসা দিলেন। জানালেন সঙ্কটের মুখে তাদের ক্রুরাও যখন উত্তেজিত হয়ে পড়ছিল, তখন মোদী ছিলেন আশ্চর্যরকম শান্ত।

এএনআইকে গ্রিলস আরও জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী পরিবেশের কথা গভীরভাবে ভাবেন। তার জন্যই এই অ্যাডভেঞ্চারে অংশ নিয়েছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। জঙ্গলের মধ্যে মোদী যেরকম স্বচ্ছন্দ ও শান্ত ছিলেন, তা তাঁকে অবাক করেছিল। যৌবনে অনেকদিন জঙ্গলে কাটানোর কারণেই মোদী এটা করতে পেরেছেন বলে মনে করেন গ্রিলস।

তবে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর চরিত্রের যে দিকটা তাঁকে সবচেয়ে মুগ্ধ করেছে তা হল নরেন্দ্র মোদীর নম্রতা। গ্রিলস জানিয়েছেন তাঁরা যখন যা করতে বলেছেন, মোদী মুখে হাসি নিয়ে তাতে সামিল হয়েছেন। অতি বৃষ্টিতে ভিজতে হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা কর্মীরা তাঁর মাথার উপর ছাতা ধরতে চেয়েছিলেন। মোদী বারণ করে দেন।

গ্রিলস সামান্য কিছু বাঁশ, খড়, ত্রিপল দিয়ে ছোট্ট ডিঙ্গি তৈরি করে, তাতেই নদী পার করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। নিরাপত্তা কর্মীরা অত ছোট ডিঙিতে প্রধানমন্ত্রীকে ছাড়তে রাজি ছিলেন না। মোদী কিন্তু সাগ্রহে উঠে বসেন তাতে। গ্রিলসকেও তাঁর সঙ্গে বসতে অনুরোধ করেন। কিন্তু দুজন উঠলেই সেই ডিঙি ডুবে যাচ্ছিল, তাই গ্রিলস নিজে না উঠে নদীতে সাঁতরে মোদীর ডিঙি ঠেলে নিয়ে যান।

ম্যান ভার্সাস ওয়াইল্ড-এ সঞ্চালক আরও জানিয়েছেন, অভিযানের শুরুতেই তিনি নরেন্দ্র মোদীকে বলেছিলেন হিংস্র জন্তু থেকে শুরু করে, বড় নদী, আবহাওয়ার দাপট - সব কিছু থেকে তিনিই প্রধানমন্ত্রীকে রক্ষা করবেন। তবে নরেন্দ্র মোদী যে এতটা শান্ত ও সহানুভুতিশীল, তা তিনি তখন বুধঝতে পারেননি। গ্রিলস জানান, জঙ্গল মানুষের আসল রূপটা বের করে আনে। সেখানে প্রধানমন্ত্রী বা অন্য কোনও পরিচয়ের কোনও মূল্য নেই। গ্রিলস আরও বলেছেন, সঙ্কটের মুখে একজন রাষ্ট্রনেতা এইরকম শান্ত থাকতে পারেন এটা খুবই ভাল বিষয়।