নয়ডা পুলিস কংগ্রেস নেতা শশী থারুর, সাংবাদিক রাজদীপ সরদেশাই, বিনোজ কে জোসে মৃণাল পাণ্ডে সহ একাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহীতার অভিযোগ দায়ের করেছে। সেক্টর ২০ থানায় দায়ের করা অভিযোগে বলা হয়েছে ২৬ জানুয়ারি কৃষকদের ট্র্যাক্টর ব়্যালি চলাকালীন এক কৃষকের মৃ্ত্যুর বিষয়ে ভুয়ো খবর ও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার অভিযোগে তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অর্পিতা মিশ্রের অভিযোগের ভিত্তিতে এই এফআইআর দায়ের করা হয়েছে বলেও পুলিশ সূত্রের খবর। তালিকায় রয়েছে ন্যাশানাল হেরাল্ডের প্রধান সম্পাদক জাফর আগা, ক্যারাভানের সম্পাদক অনন্ত নাথের নামও। 


মামলাটি দায়ের করা হয়েছে উত্তর প্রদেশে। যদিও মামলাটির দিল্লি পুলিশের এক্তিয়ারের মধ্যে পড়ে। এক আইনজীবী জানিয়েছেন, উত্তর প্রদেশের পুলিশ দেখানোর চেষ্টা করছে যেকোনও জায়গায় মামলা দায়ের করা যেতেই পারে। তবে পরবর্তীকালে এটি দিল্লি পুলিশের হাতেই তুলে দেওয়া হবে। সাংবাদিক ও রাজনীতিকদের বিরুদ্ধে গোষ্ঠীর শক্রুতা প্রচার, সম্প্রিতী নষ্ট করা, ধর্মীয় অনুভূতিকে আঘাত, শান্তি নষ্ট সহ একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। 


অন্যদিকে গাজিপুর সীমান্ত সব বেশ কয়েকটি এলাকায় আন্দোলনকারী অন্নদাতাদের সরিয়ে দেওয়ার মরিয়া প্রয়াস চালাচ্ছে দিল্লি পুলিশ। বেশ কয়েকটি জায়গা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে জল সরবরাহ। ছিন্ন করা হয়েছে বিদ্যুৎ সংযোগ।  গাজিপুর সীমান্ত আন্দোলনাকীর কৃষকদের অবস্থান তুলে দেওয়ার সরকারি নোটিশ পাঠান হয়েছে। পাশাপাশি টিকরি ও সিংহু বর্ডারে নিরাপত্তা আরও বাড়ান হেয়েছে। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি এলাকায় ভিড় পাতলা হতে শুরু করেছে। তবে এখনও পর্যন্ত নিজেদের অবস্থানে অনড় রয়েছে কৃষক নেতারা। গাজিপুর সীমান্তে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আরপিএফ মোতায়েন রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।