শুক্রবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত জম্মু ও কাশ্মীরের সোপিয়ান। সকাল থেকেই সেনাবাহিনী ও সন্ত্রাসবাদীদের মধ্যে চলছিল গুলির লড়াই। এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে দু-পক্ষের গোলাগুলিতে মৃত্যু হয়েছে এক সন্ত্রাসবাদীর। যদিও এখনও সেই মৃত জঙ্গির দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। 

সীমান্তে নিরাপত্তাবাহিনীর কাছে খবর ছিল যে, সোপিয়ানের নারওয়ানি এলাকায় ২-৩ জন জঙ্গির লুকিয়ে রয়েছে। সেই খবরের ভিত্তিতেই সেই এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালিয়েছিলেন সীমান্তের নিরাপত্তারক্ষীরা। পুলিশের তল্লাশি অভিযান চলার সময়েই জঙ্গিরা সেনাবাহিনীকে উদ্দেশ করে গোলাবর্ষণ করতে শুরু করে। আর ঠিক তার পরই দু-পক্ষের তরফে শুরু হয় গুলির লড়াই। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, সোপিয়ানে এনকাউন্টার এখনও চলছে। 

প্রসঙ্গত এই ঘটনার পরই সোপিয়ান এবং পুলওয়ামায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থেই ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সেনাবাহিনীর ৪৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেল, সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স এবং জম্মু ও কাশ্মীর স্পেশাল  অপারেশান গ্রুপ-এর তরফ থেকে এই তল্লাশি অভিযান চালানো হয়েছে বলে খবর। একজন শীর্ষ পুলিশ কর্তা জানয়েছেন, সোপিয়ানে জঙ্গির উপস্থিতি রয়েছে এই বিষয়ে তাঁরা বিশ্বস্ত সূত্র থেকে খবর পান। আর তারপরই এই তল্লাশি অভিযানে নামেন তাঁরা।