পিৎজা অর্জার করেছিলেন মোবাইল অ্যাপে। তবে তার জন্য যে এত টাকার মূল্য দিতে হবে তা স্বপ্নেও ভাবেননি বেঙ্গালুরুর এক তথ্যপ্রযুক্তিকর্মী। অনলাইন প্রতারণায় যার খোয়া গেল ৯৫ হাজার টাকা।

বেঙ্গালুরুর কোরমাঙলা বাসিন্দা এনভি শেইখ গত পয়লা ডিসেম্বর দুপুরে পিৎজা অর্ডার করেন ফুড ডেলিভারি অ্যাপ জোমাটোর মাধ্যমে। ফোনে নিজের জন্য একটি পিৎজা অর্ডার করেছিলেন তিনি। কিন্তু পিৎজার জন্য একঘণ্টা অপেক্ষা করার পরও ডেলিভারি না আসায় চিন্তিত হয়ে পড়েন ওই ব্যক্তি। এরপর ওই অ্যাপের কাস্টমার কেয়ার সার্ভিসে ফোন করেন তিনি।

কাস্টমার কেয়ারে ফোন করে যুবক জানতে পারেন রেস্তোরাঁ তাঁর অর্ডার নেয়নি , সেক্ষেত্রে তাঁর টাকা ফেরত দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়। কাস্টমার কেয়ার এক্সিকিউটিভ জানান তাঁর ফোনে একটি ম্যাসেজ পাঠানো হচ্ছে, ম্যাসেজে থাকা লিঙ্গে ক্লিক করলেই ফেরত পাওয়া যাবে টাকা। 

আর ওই লিঙ্কে ক্লিক করেই চরনম বিপদ ডেকে আনেন শেইখ। মাডিওয়ালা পুলিশ জানায়, জালিয়াতরা তাঁর ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টের ডিটেলস পাওয়া যায়। 

ক্লিকে লিঙ্ক করার এক মিনিটের মধ্যে শেইখের অ্যাকাউন্ট থেকে খোয়া যায় ৪৫ হাজার টাকা। ব্যাঙ্কে থাকা টাকা অন্যখানে স্থানান্তর করার মাঝেই বেহাত হয়ে যায় আরও ৫০ হাজার টাকা। 

মাডিওয়ালা থানার পুরো বিষয়টি জানিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন শেইখ। এই অভিযোগের ভিত্তেত তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। মায়ের ক্যানসার চিকিৎসার জন্য এই টাকা জমিয়েছিলেন শেইখ।

এদিকে তাদের কোনও কাস্টমার কেয়ার নম্বর নেই বলে দাবি করছে জোমাটো। যদিও গত কয়েকদিন ধরেই  এই অনলাইন খাবার পরিবেশনকারী অ্যাপের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ জমা পড়ছে।