খুব শিগগিরই সংসদের ক্যান্টিনের মেনু সম্পূর্ণ নিরামিষ হতে চলেছে। না, কোনও বিজেপি নেতা এরকম দাবি জানাননি। বা এরকম কোনও বিলও পেশ করেনি সরকার। আসল বিষয়টি হল ভারতীয় রেল মন্ত্রকের ভর্তূকিপ্রাপ্ত সংস্থা আইআরসিটিসি, যারা এখন সংসদের ক্যান্টিন পরিচালনার দায়িত্বে আছে তাদের সরিয়ে দেওয়ার কথা চলছে। বদলে দায়িত্ব পাওয়ার বিষয়ে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে হলদিরাম ও বিকানিরওয়ালা।

সংসদের মোট পাঁচটি ক্যান্টিন চালানোর জন্য এই দুই বেসরকারি সংস্থার দৌড়ে এগিয়ে থাকার অর্থই হল, সংসদে এরপর শুধুমাত্র নিরামিষ খাদ্যই মিলবে। কারণ এই সংস্থাদুটির কেউই মাংসের পদ বা কোনও আমিষ খাদ্যপদ তৈরি করে না। এছাড়াও আইআরসিটিসি-র জায়গা নেওয়ার দৌড়ে আরও একটি তৃতীয় সরকারি সংস্থা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তবে তার সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা একপ্রকার নেই। সংসদের খাদ্য কমিটির অনুপস্থিতিতে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা। তাঁর ঝোঁক, হলদিরাম ও বিকানিরওয়ালাদের দিকেই বলে জানা গিয়েছে।

তবে শেষ পর্যন্ত সংসদের ক্যান্টিনের সব খাওয়ার নিরামিষ হয়ে গেলে কিন্তু বিতর্কের ঝড় উঠতে পারে। বিশেষ করে ভোজনরসিক সাংসদরা এটা কতটা মেনে নেবেন, তাই নিয়ে বেশ সন্দেহ রয়েছে। এখনও পর্ষন্ত চিকেন কাটলেট, বিরিয়ানি, ফিস অ্যান্ড চিপস-এর মতো পদই বেশিরভাগ সাংসদদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে বলে জানা যায়।

আইআরসিটিসি-কে সরানোর কারণ হল, গত কয়েক মাস ধরেই ক্যান্টিনে পরিবেশিত খাবারের মান নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। তার থেকেও বড় কথা হল শীতকালীন অধিবেশনে সকল সাংসদরা একমত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সংসদের ক্যান্টিনে ভর্তুকি দেওয়া হবে না। কাজেই সরকারি ভর্তুকিপ্রাপ্ত একটি সংস্থার পক্ষে ক্যান্টিন চালালে সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা যাবে নাা। আসন্ন বাজেট অধিবেশন চলাকালীনই সংসদের বিজনেস অ্যাডভাইজরি কমিটির বৈঠকে ক্যাটারার বদলের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।