বাজি ভরা আনারস খাইয়ে হাতি হত্যা নিয়ে দেশে-বিদেশে সমালোচনার মধ্য়েই ফের প্রায় একই রকম বর্বরতার খবর এল। এবার মানুষের নিষ্ঠুরতার শিকার হল একটি চিতা। দক্ষিণের রাজ্য কেরলের পর এবার ঘটনা উত্তর-পূর্বের রাজ্য অসমের।  রবিবার গুয়াহাটির কোটাবাড়ি এলাকায় কয়েকজন রীতিমতো ফাঁদ ফেলে চিতাটিকে আটকে হত্য়া করেছে বলে অভিযোগ।

স্থানীয়দের দাবি, গত দু'দিন ধরেই ওই অঞ্চলে দেখা যাচ্ছিলল চিতাটিকে। সম্ভবত খাদ্যের সন্ধানে লোকালয়ে চলে এসেছিল সে। এতে কোটাবাড়ি এলাকার এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়েছিল। কিন্তু, বন দপ্তরকে খবর দেওয়ার বদলে স্থানীয়রা চিতাটিকে ধরার জন্য একটি ফাঁদ তৈরি করেছিল। রবিবার ভোরে সেই ফাঁদেই ধরা দেয় চিতাটি।

এরপর ফাঁদে পড়া চিতাটির দাঁত, নখ উপরে নেয় স্থানীয়রা।  চামড়া ছাড়িয়ে নেওয়া হয়। এভাবেই এসময় মরে যায় চিতাটি। এখানেই শেষ নয়, ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে এরপর চিতার হত্যাকারীদের চিতাটির মৃতদেহ নিয়ে সোল্লাসে মিছিল করতে দেখা গিয়েছে।

ওই ভিডিওর সূত্র ধরেই বনবিভাগের কর্মকর্তারা ও পুলিশকে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে চিতাটির দেহ উদ্ধার করে। বিষয়টি নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। চিতা হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গোরচুক থানার পুলিশ সাতজনকে আটক করেছে।

তবে অসমে চিতা হত্যার ঘটনা নতুন নয়। মাত্র কিছু দিন আগেই একই ঘটনা ঘটেছিল গোলাঘাট জেলায়। এদিনের ঘটনা নিয়ে এই বছরই মোট ৫টি চিতাকে হত্যা করা হল অসমে।