করোনার ভার্চ্যুয়াল উদ্বোঝনে প্রধানমন্ত্রী। লাইভে এসে গর্বের দিন নিয়ে চোখে জল মোদীর। একটা সময় ছিল যখন এই ভ্যাকসিনের জন্য হাহাকার করেছিল সাধারণ মানুষ। কিন্তু সেই সময় অসহায় ভাবে মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়তে হয়েছিল বহু মানুষকে। আর করোনার সঙ্গে লড়াইয়ের মূল মন্ত্র হয়ে উঠেছিল একটাই, মাস্ক, দুরত্ব বজায় রাখা ও অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে না পা রাখা। যতদিন না ভ্যাকসিন আসছে এভাবেই চলতে থাকবে এমনটাই ছিল নির্দেশ। 

আরও পড়ুন-দেশ জুড়ে শুরু হল প্রথম করোনা টিকাকরণ, লাইভে প্রধানমন্ত্রী কোন কোন বিষয় নজর দিলেন.

এবার ভ্যাকসিনের উদ্বোধনে লাইভে এসে সকলকে সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী। জানালেন, একচা ভ্যাকসিন নিয়েই সকলে নিয়ম ভেঙে বাইরে বেড়িয়ে পড়বেন না। কারণ পর পর দুটি ভ্যাকসিন না নিলে করোনা প্রতিরোধের ক্ষমতা তৈরি হবে না শরীরে। তাই এই সময়টা সাবধানেই থাকতে হবে। মাথায় রাখতে হবে ভ্যাকসিন নিলেও মাস্ক, দুরত্ব সবই মেনে চলতে হবে। প্রথম লটে দেওয়া হবে ৩ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন। তারপর দেওয়া হবে ত্রিশ কোটি মানুষকে। 

 

ভ্যাকসিন নিলেই যে সকলে রাস্তায় বেড়িয়ে পড়বেন এমনটা নয়। সকলের কাছে ভ্যাকসিন পৌঁছতে বেশ কিছুটা সময় লাগবে। এটা একটা দীর্ঘ প্রক্রিয়া। যা আজ থেকে শুরু হল। তাই এই সময়টা সাবধানে থাকাটা একান্ত প্রয়োজন। প্রথম থেকে যেভাবে করোনার সঙ্গে লড়াই করে এসেছে সকলে তাতে প্রমাণ হয়েছে যে সাবধান থাকলেই সংক্রমণের সম্ভাবনা অনেকটাই কমানো যায়। আর যাঁরা প্রথম সারিতে থেকে লড়াই চালিয়েছেন, ও চালাচ্ছেন তাঁদের এই টিকা সবার আগে দেওয়া হচ্ছে বিনামূল্য। তাই সকলকে ধৈর্য্য রেখেই নিয়ম পালনে অনুরোধ করলেন এদিন প্রধান মন্ত্রী।