স্বাধীনতার আগেই আরও উন্নত ইন্টারনেট পরিষেবা পেতে চলেছে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের বাসিন্দারা। সোমবারই প্রাধনমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দিল্লি থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাবমেরিন অপটিক্যাল ফাইবার কেলবের মাধ্যমে চেন্নাই থেকে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের জন্য দ্রুত ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করেন। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর এই প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 

কী বললেন প্রধানমনন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী 

প্রকল্পটি চালু করার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন যেকোনও পর্যটনকেন্দ্রের সাফল্যের প্রথম ও প্রধান শর্তই হল দ্রুত ইন্টারনেট পরিষেবা। আর এত দিনে সেই সমস্যার সমাধান হল। পর্যটন কেন্দ্র সফল হওয়া মানেই কর্মসংস্থানের পথ খুলে যাওয়া। 
আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে সাবমেরিন ফাইবার অপটিক কেবল চালু করার মাধ্যমে বিশ্বে একটি দৃষ্টান্ট স্থাপন করছে ভারত। 
স্বাধীনতা দিবসের প্রাককালে  দ্বীপপুঞ্জের বাসিন্দাদের এই উপহার দেওয়া হল। প্রায় ২৩০০ কিলোমিটার সমুদ্রের তলা দিয়ে কেবল প্রসিস্থাপন করা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের আগেই কাজটি শেষ হয়েছে। এটা খুব সহজে করা যায়নি। চেন্নাই থেকে পোর্ট ব্লেয়ার বন্দর পর্যন্তই ফাইবার অপটিক কেবল প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। 

উপকৃত হবেন 

এই প্রকল্পের মাধ্যমে চেন্নাই থেকে পোর্ট ব্লেয়ার হয়েছে আন্দামান নিকোবরের সাতটি দ্বীপ- স্বারাজ (হ্যাভলক), লং আইল্যান্ড, রাঙ্গাক, হুটবে(লিটিল আন্দামান), কামোর্তা, কার নিকোবর ও ক্যাম্পবেল বে (গ্রেট নিকোবর)-এর যোগাযোগ পরিষেবা আরও উন্নত করা যাবে। স্থানীয় বাসিন্দারা দ্রুতগামী ইন্টারনেট পরিষেবা পাবেন। রাষ্ট্রায়াত্ত্ব সংস্থা বিএসএনএল সোমবার থেকে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের গ্রাহকদের জন্য ১০ গুণ দ্রুত ব্রডব্যান্ড পরিষেবা দিতে পারবে। পাশাপাশি ২০ গুণ বেশি ডেটা ডাউনলোডের সুবিধে ভোগ করতে পারবেন।  
আর এই পরিষেবা চালু হওয়ায় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা রীতিমত সুবেধে পাবেন। ব্যবসায়ীক কাজেও সুবিধে পাবেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। জাতীয় শিক্ষানীতিতে ই-লার্রিংএর ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। আর এই পরিষেবা চালু হলে দ্বীপপুঞ্জের পড়ুয়ারা রীতিমত উপকৃত হবেন। একই সঙ্গে মোবাইল ও ল্যান্ডলাইন পরিষেবাও উন্নত হবে। আগামী দিনে ৪জি পরিষেবা চালু করার পরিকল্পনাও গ্রহণ করা হবে। 

সাবমেরিন অপটিক্যাল ফাইবার কেবল  প্রকল্প

সমুদ্রের তলা দিয়ে টেলিকমিউনিকেশন সিগনাল যাওয়া।  অপটিক্যাল ফাইবারটি পরিষেববান্ধব প্ল্যাস্টিকের লেয়ারে মোড়া থাকে। ইন্টারনেট পরিষেবার জন্য উপগ্রহের ছেকে সাবমেরিন কমিউনিকেশন অনেক বেশি সুবিধেজনক। একই সঙ্গে এটির জন্য খরচও অনেকটাই কম পড়ে। 
সমুদ্রের তলা দিয়ে ২৩০০ কিলোমিটার লম্বা ফাইবার অপটিক্যাল কেবল বসানো হয়েছে। চেন্নাই থেকে পোর্ট ব্লেয়ার পর্যন্ত সমুদ্রের নিচেই হয়েছে এই কাজ। খবর হয়েছে ১২২৪ কোটি টাকা। যোগাযোগ মন্ত্রকের অধীনেই এই প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। 


ডিজিটাল ইন্ডার জন্য গুরুত্বপূর্ণ

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ডিজিটাল ইন্ডিয়া চিন্তাভাবনা এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ফসল। আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ ডিজিটালই স্বাধীন হবে বলেই প্রচার শুরু করেছে বিজেপি।