ঘূর্ণিঝড় নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক মোদীর। বাংলায় আসতে চলেছে ঘূর্ণীঝড় 'যশ'। মৌসম ভবনের দেওয়া পূর্বভাস অনুযায়ী,   ওড়িশা এবং পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের দিকেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণীঝড় 'যশ'।  রবিবার এই  ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়ে বৈঠক করবেন মোদী। 

আরও পড়ুন, আজ বজ্রবিদ্যুৎ সহ প্রবল বৃষ্টি রাজ্যে, আসছে ঘূর্ণীঝড় 'যশ', কী বলছে মৌসম ভবন 

 

 


জানা গিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়  'যশ'-র বিরুদ্ধে প্রস্তুতি পর্যালোচনা প্রধানমন্ত্রী রবিবার সকাল ১১ টায় বৈঠকে বসবেন। এদিন শীর্ষ স্থানীয় আধিকারিক এবং জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের (এনডিএমএ) প্রতিনিধি , টেলিযোগাযোগ, বিদ্যুৎ, নাগরিক বিমান, পৃথিবী বিজ্ঞান মন্ত্রনালয়ের সেক্রেটারিদের সঙ্গে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করবেন   প্রধানমন্ত্রী। এইচএম এবং অন্যান্য মন্ত্রীরাও বৈঠকে যোগ দেবেন। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই ঘূর্ণিঝড়  'যশ'কে নিয়ে রীতিমত সতর্ক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। ইতিমধ্য়েই শনিবার বিপর্যয় মোকাবিলার প্রস্তুতি নিয়ে সংশ্লিষ্ট জেলাগুলির ডিএম এবং এসপি, কেন্দ্র ও রাজ্যের সমস্ত সিনিয়র অফিসারদের সঙ্গে ব্যাপক পর্যালোচনা করেছেন বলে আশ্বস্ত করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।মমতা টুইটবার্তায় জানিয়েছেন, সমস্ত সরকারি কর্তাকে নিজেদের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে ঘূর্ণিঝড় ও বন্যার আশ্রয়কেন্দ্রকে প্রস্তুত রাখা, অবিলম্বে ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এবং উপকূলীয় ও নদীর তীরবর্তী এলাকাগুলির মানুষদের নিরাপদ এলাকায় দ্রুত সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অগ্রিম পরিকল্পনা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, মৎসজীবীদের অবিলম্বে ফিরে আসার জন্য সতর্ক করা হয়েছে।

আরও পড়ুন, ঘূর্ণিঝড় যশের মোকাবিলায় ছুটি বাতিল বিদ্যুত দফতরের কর্মীদের, প্রস্তুতি তুঙ্গে নবান্নে 

 


প্রসঙ্গত,  সদ্য ঘূর্ণীঝড় তাউতে তাণ্ডবে তছনছ হয়ে গিয়েছে ভারতের পশ্চিম উপকূল। কেরালা, মহারাষ্ট্র, গুজরাটে ধ্বংসলীলা চালিয়েছে এই ভয়াবহ ঘূর্ণীঝড়।  আর তারই মাঝে এবার আমফানের বিভীষিকাময় স্মৃতি নিয়ে আসছে প্রবল শক্তিশালী ঝড় 'যশ'।  মৌসম ভবনের দেওয়া পূর্বভাস অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের দিকেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণীঝড় 'যশ'। ২৬ মে  ওড়িশা এবং পশ্চিমবঙ্গের উপকূলে সেই ঝড় আছড়ে পড়বে বলে জানা যাচ্ছে। ঘূর্ণীঝড় 'যশ' এর শক্তিও হবে আমফানের মতোই।  শনিবারই পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর এবং তৎসংলগ্ন উত্তর আন্দামান সাগরের উপরে এই নিম্নচাপ ব্যবস্থা গঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছে মৌসম ভবন। এই নিম্নচাপ ক্রমশ অতি তীব্র আকার ধারণ করে ঘূর্ণীঝড়ে পরিণত হবে বলে সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে। ২৩ মে সকালে নিম্ন-চাপ ব্যবস্থাটি পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ধরে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। ২৪ মে এই ঘূর্ণিঝড় আরও তীব্র আকার ধারণ করবে এবং পরের ২৪ ঘন্টায় এটি আরও ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে।