সংসদের ভিতরে ও বাইরে চলছে প্রতিবাদ। বিরোধী দলগুলির পাশাপাশি তীব্র বিরোধিতা করে রাস্তায় নেমেছেন কৃষকরাও। এই বিলের বিরোধিতায় এনডিএ ত্যাগ করেছে দীর্ঘদিনের শরিক অকালি দল। রবিবার এই চরম উত্তপ্ত আবহাওয়ার মধ্য়েই রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দ সংসদে পাস হওয়া তিনটি কৃষি বিল-কে সম্মতি দিলেন। অর্থাৎ এই বিলগুলি আইনে পরিণত হল।

গত সপ্তাহে, সংসদে বিলগুলি পাস হওয়ার পর বিরোধী দলগুলি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিল। বিরোধী নেতারা তাঁকে কৃষি বিলগুলিকে সম্মতি না দিতে অনুরোধ করেছিলেন। দাবি করেছিলেন, রাজ্যসভায় বিলটি 'সংবিধান-বিরুদ্ধভাবে' পাস করা হয়েছে। কিন্তু, তাদের অনুরোধে সাড়া দিলেন না রাষ্ট্রপতি। কৃষি পণ্য ব্যবসা ও বাণিজ্য (প্রচার ও সুবিধাদি) বিল, কৃষকদের (ক্ষমতায়ন ও সুরক্ষা) মূল্য আশ্বাস ও খামার পরিষেবাদি সংক্রান্ত চুক্তি বিল এবং অপরিহার্য পণ্য (সংশোধনী) বিল, রবিবার থেকে আইন হল।  

বিরোধীরা এই তিনটি বিলকে কৃষকবিরোধী বলে অভিহিত করেছে। শনিবার একই কথা শোনা গিয়েছে বিজেপির দীর্ঘদিনের সঙ্গী শিরোমণি আকালি দল-এর গলাতেও। গত কয়েকদিনে হরিয়ানা ও পঞ্জাবের কৃষকরা এই বিলের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। তবে, রবিবারও মন কি বাত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিলগুলির সপক্ষে যুক্তি দিয়েছেন।  তিনি বলেছেন একবিংশ শতাব্দীর প্রয়োজন মেনেই এই সংস্কারগুলি করা হয়েছে। কৃষকদের ভয় দূর করতে তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েছেন, বিলগুলি কৃষক বা কৃষিমান্ডির বিরুদ্ধে নয়। বিলগুলি কৃষকদের অবাধ ক্ষমতা দেবে।