পিছনের দরজা দিয়ে জনমতের বিরুদ্ধে কর্ণাটকে ক্ষমতায় এসেছিল কংগ্রেস। উপনির্বাচনে তাই কংগ্রেসকে শিক্ষা দিয়েছেন কর্ণাটকের মানুষ। ঝাড়খণ্ডে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে এভাবেই কর্ণাটকের উপনির্বাচনের ফলাফল নিয়ে কংগ্রেসকে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 

কর্ণাটকের পনেরোটি আসনের উপনির্বাচনের ফলাফল এ দিনই প্রকাশিত হয়েছে। বিকেল পর্যন্ত অন্তত বারোটি আসনে বিজেপি-র জয় নিশ্চিত। এই জয়ের ফলে কর্ণাটকে বি এস ইয়েদুরাপ্পা সরকারের ক্ষমতায় টিকে যাওয়া নিয়ে আর কোনও সংশয়ই রইল না। কারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখার জন্য উপনির্বাচনে ছ'টি আসনে জিতলেই চলত বিজেপি-র। 

আরও পড়ুন- বিশ্বাসঘাতকদেরই ভরসা করেছে মানুষ, কর্ণাটকে হারের পর সাফাই কংগ্রেসের

মহারাষ্ট্রে শেষ মুহূর্তে ক্ষমতা হাতছাড়া হওয়ার পরে স্বভাবতই মুষড়ে পড়েছিল বিজেপি নেতৃত্ব। সেখানে কর্ণাটকের উপনির্বাচনের ফল তাঁদেরকে অনেকটাই স্বস্তি দিয়েছে। স্বভাবতই খুশি প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'যাঁরা বলতেন যে দক্ষিণে বিজেপি-র কোনও প্রভাব নেই, গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে তাঁদের মুখের উপর জবাব দিয়েছেন কর্ণাটকের মানুষ।'

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, 'কংগ্রেস এবং তার জোটসঙ্গীরা কর্ণাটকের জনমতকে উল্টে দিয়েছিল, পিছনে ছুরি মেরেছিল। এই দলগুলিকে এবার মাটি কামড়াতে হবে।' নরেন্দ্র মোদীর অভিযোগ, কংগ্রেস এবং জেডিএস সরকারের আমলে কর্ণাটকে কোনও উন্নয়নই হয়নি। 

গত জুলাই মাসে বিজেপি শিবিরে যোগ দেন কংগ্রেস এবং জেডিএস- এর সতেরো বিধায়ক। যার ফলে কংগ্রেস-জেডিএস সরকারের পতন ঘটে।