এবার পাকিস্তানকে জল দেওয়া বন্ধ করার হুঁশিয়ারি দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। হরিয়ানায় ভোট প্রচারে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বলেন, হরিয়ানার দিক থেকে যে নদীর জল পড়শি দেশে যাচ্ছে, তার গতিমুখ ঘুরিয়ে হরিয়ানায় দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর মতে, এই জলের উপরে একমাত্র এ দেশের কৃষকদেরই অধিকার রয়েছে। 

নির্বাচনী জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'সত্তর বছর ধরে হরিয়ানার কৃষকদের যে জল পাওয়ার কথা, তা পাকিস্তানে চলে যাচ্ছে। এবার মোদী তা বন্ধ করবে। সেই জল আপনাদের বাড়িতে আসবে। আমি বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই কাজ করতে শুরু করেছি। এই জলের উপরে একমাত্র ভারত এবং হরিয়ানার চাষিদের অধিকার রয়েছে। সেই কারণেই মোদী আপনাদের জন্য লড়াই করছেন।' স্বভাবতই প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্য়ে উল্লাসে ফেটে পড়ে জনতা। 

প্রসঙ্গত, লোকসভা নির্বাচনের আগেও পাকিস্তানকে নিশানা করে দেশাত্মবোধের হাওয়া তুলে সফল হয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী- অমিত শাহরা। বালাকোটের এয়ার স্ট্রাইকের মতো ঘটনার মাধ্যমে পাকিস্তানকে কীভাবে শিক্ষা দেওয়া হয়েছে, তা বার বার উঠে এসেছিল প্রধানমন্ত্রী- সহ বিজেপি নেতাদের মুখে। হরিয়ানা, মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারেও একই কৌশল নিয়েছেন মোদী- শাহরা। 

এ দিন পাকিস্তানের পাশাপাশি ৩৭০ ধারার অবলুপ্তি নিয়ে কংগ্রেসকে নিশানা করেন প্রধানমন্ত্রী। ভোটারদের কাছে তিনি আবেদন করেন, কাশ্মী থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পরে গুজব ছড়ানোর জন্য কংগ্রেসকে শাস্তি দেওয়া হোক। 

মঙ্গলবার কুরুক্ষেত্র এবং চরখি দাদরিতে দু'টি জনসভা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি দাবি করেন, জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থেই ৩৭০ ধারা বিলোপ করার প্রয়োজন ছিল। দেশের সংবিধানের গুরুত্বই যে সবার উপরে, সেকথাও মনে করিয়ে দেন নরেন্দ্র মোদী।