বিদায়বেলায় রাজ্যসভার কংগ্রেস সাংসদ গুলাম নবি আজাদের আবেগময় ভাষণ আর তাঁর প্রতিউত্তরে প্রধানমন্ত্রী ভাষণ দেওয়ার সময় এক অন্য মূহুর্তের সাক্ষী থাকল রাজ্যসভা। কারণ এদিন রাজ্যসভার গন্ডি ছাড়িয়ে গোটা দেশ দেখল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর চোখের জল।  প্রধানমমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কংগ্রেসের প্রবীন ব্যক্তিকে শুভেচ্ছা জানান। সেই সঙ্গে বিরোধী দলের সাংসদদের পরিবার হিসেবেও বর্ণনা করেন। 

রাজ্যসভায় শেষ দিনে বিদায় ভাষণ রাখতে গিয়ে কংগ্রেস সাংসদ গুলাম নবি আজাদ এদিন ইন্দিরা গান্ধী থেকে শুরু করে রাজীব গান্ধী সঞ্জয় গান্ধী সহ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা ভাগ করে নেন সকলের সঙ্গে। একই সঙ্গে তিনি তাঁর রাজনৈতিক জীবনের উত্থান ও  পথ চলা কথাও বলেন। সেই সময়ই তিনি বলেন হিন্দুস্থানী মুসলিম হিসেবে তিনি গর্ববোধ করেন। একই সঙ্গে রাজনৈতিক জীবনে কাশ্মীরী পণ্ডিতদের ভূমিকার কথাও স্মরণ করেন। রাজনৈতিক জীবনের নানান মোড়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন এই দেশের কাছে সন্ত্রাসবাদ একটি বড় চ্যালেঞ্জ। তিনি চান আগামী দিনে এই দেশ থেকে যেন চিরতরে বিলীন হয়ে যায় সন্ত্রাসবাদ আর হিংসা। বিদায়কালীন বার্তায় গুলাম নবি আজাদ ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী তাঁর ব্যস্ততার মধ্যেও মধ্যেও তাঁর ফেয়ারওয়েল ভাষণ শুনেছেন। একই সঙ্গে তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একাধিকবার তাঁর বিতর্ক হয়েছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী তাতে কিছু মনে  করেনি বলেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।  

পাল্টা তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন গুলাম নবি আজাদকে তিনি বিদায় নিতে দেবেন না। তাঁর অভিজ্ঞতা আর মূল্যবান পরামর্শ আগামী দিনেও প্রধানমন্ত্রী চেয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, তিনি বহু বছর ধরে গুলাম নবি আজাদকে চেনেন। তাঁরা দুজনে মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন একাধিকবার আলোচনা করতে। সেই সময় তাঁদের মধ্যে যোগাযোগ ছিল বলেও জানিয়েছেন তিনি। গুররাতের পর্যটকদের ওপর জঙ্গিহানার স্মৃতিও উল্লেখ করেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, সেই সময় আদাজের তৎপরতায় গুজরাতের নাগরিকরা উদ্ধার পেয়েছিলেন। আজাদের বিদায়কালীন সময়কে তিনি একটি আবেগময় মুহূর্ত বলেও চিহ্নিত করেন। সেই সময় প্রধানমন্ত্রীর চোখেও জল এসেছিল। তিনি কংগ্রেস সাংসদকে সত্যিকারের বন্ধু হিসেবে বর্ণনা করেছেন। 


এদিন কথা বলার সময় বারবারই তিনি থেমে যাচ্ছিলেন। কথা বলতে বলতে তিনি আটকে যাচ্ছিলেন। দুএকবার সম্মান জানানোক ভঙ্গিতে কপালে গাত তুলে স্যালুটও করেন তিনি। তিনি বলেন গুলাম নবি আজাদের মত মানুষের এতদিন ধরে সংসদে থেকে দেশের জন্য কাজ করে গেছে। যাকে এদিন তিনি সম্মান জানান। বক্তব্য শেষ করার আগে স্যালুটও করেন তিনি।