বাড়িতে কোয়ারেনটাইনে যাঁরা রয়েছেন, তাঁদের জন্য় তৈরি হল নতুন ওয়েবসাইট। তৈরি করল পুণের জেলা প্রশাসন।

 

চিন, কোরিয়া, ইতালি, স্পেন, ইরানের মতো করোনা আক্রান্ত দেশগুলিতে থেকে যাঁরা এদেশে আসছেন, তাঁদের এখন সেনা শিবিরে বা হাসপাতালে কোয়ারেনটাইনে রাখা হচ্ছে। কিন্তু এইরকম কিছু দেশ ছাড়া অন্য় দেশগুলি থেকে যাঁরা আসছেন, তাঁদের রাখা হচ্ছে বাড়ির কোয়ারেনটাইনে। এই মুহূর্তে গোটা দেশে কয়েকহাজার মানুষ এইভাবে গৃহবন্দি হয়ে রয়েছেন। এবং এই সংখ্য়া ক্রমশ বেড়ে চলেছে। তাই হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডের পাশাপাশি  বাড়িতে যাঁরা কোয়ারেনটাইনে রয়েছে, তাঁদের ওপর নজরদারি ক্রমশ বাড়ছে। বাড়ছে তাঁদের গুরুত্বও।

 

এই পরিস্থিতিতে বাড়িতে যাঁরা কোয়েরেনটাইনে রয়েছেন, তাঁদের তথ্য়তালাশের আপডেট পেতে তৈরি করা হয়েছে এই বিশেষ ওয়েবসাইটটি।  দুদিনের মধ্য়ে চালু হয়ে যাবে এটি। চিকিৎসক থেকে শুরু করে সাধারণ নাগরিক, যে কেউ এই ওয়েবসাইটটি অ্য়াকসেস করতে পারবেন। শুধু একটি ওটিপি পাঠিয়ে ভেরিফিকেশন করা হবে।

 

পুণের জেলা পরিষদের সিইও আয়ুষ প্রসাদ জানান, বাড়িতে যাঁরা কোয়ারেনটাইনে থাকছেন, তাঁদের খবরাখবর পাওয়া যাবে এর মাধ্য়মে। শুধু তাই নয়। সম্ভাব্য় কোনও রোগীকেও সহযোগিতা করবে এই প্ল্য়াটফর্ম। সবচেয়ে বড় কথা, এই ওয়েবসাইট জনগণের সঙ্গে প্রশাসনের যোগাযোগকে আরও নিবিড় করবে।

 

ওয়েবসাইটটির নাম দেওয়া হয়েছে idsp.mkcl.org । কেউ চাইলে এর মাধ্য়মে জানাতে পারবেন, তিনি সম্প্রতি বিদেশ থেকে ঘুরে এসেছেন কিনা। তিনি স্বেচ্ছায় ঘরবন্দি হয়ে আছেন কিনা। তাঁর শরীরে কোনও অস্বস্তি বা বিশেষ লক্ষণ দেখা দিচ্ছে কিনা। কোয়ারেনটাইনে থাকা লোকজনেরা ওয়েবসাইটের মাধ্য়মেই তাঁদের শারীরিক অবস্থার আপডেট দিতে পারবেন। সেইসঙ্গে চিকিৎসক মহল আর স্থানীয়  প্রশাসনও তাঁর সম্বন্ধে ওয়াকিবহাল হতে পারবে। এইভাবে অনেক বড় আকারে নজরদারি করা সম্ভব হবে। তেমন পরিস্থিতি হলে, দ্রুত হাসপাতালে ভরতি করে চিকিৎসাও শুরু করা যেতে পারে।

 

প্রসঙ্গত, বাইরে থেকে আসা বা সম্ভাব্য় অনেক  রোগীই ভুল তথ্য় দিয়ে প্রশাসনকে ধন্দে ফেলছেন। অনেক ক্ষেত্রেই তাঁদের বাড়িতে গেলে সোজা বলে দেওয়া হচ্ছে সেখানে নেই ওই ব্য়ক্তি। এই পরিস্থিতিতে একটা জবরদস্ত নেটওয়ার্ক তৈরি করা খুব জরুরি ছিল। আর সেই কাজটাই করতে চলেছে এই ওয়েবসাইট।