সপ্তদশ লোকভা নির্বাচনের প্রচারে কোনও ত্রুটিই রাখেননি। কিন্তু সেইসব স্ট্র্যাটেজি যে কার্যত ধোপে টেকে নি তা বোঝা গিয়েছে নির্বাচনের ফলাফল থেকেই। এবারের লোকসভা নির্বাচনে সারা দেশজুড়ে কংগ্রেসের যে ভরাডুবি তাতে কার্যত প্রশ্নের মুখে উঠেছে ভারতের রাজনীতিতে কংগ্রেস দলের অস্তিত্ত নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

প্রসঙ্গত, নির্বাচনের ফল প্রকাশের পরই দলের এই ভরাডুবির দায়ভার নিজের মাথায় নিয়ে দল থেকে পদত্যাগও করতে চেয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। যদিও কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির তরফ থেকে সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হয়নি। এরপরও বেশ কয়েকবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে পড়েছিলেন রাহুল। তাঁকে প্রশ্ন করা হয় যে, আগামী দিনে দলের নেতৃত্ব তিনি কার হাতে তুলে দিতে চান, এর উত্তরে তিনি বলেছিলেন, দলের নেতৃত্ব কে দেবেন তা দলই ঠিক করবেন। এবিষয়ে তিনি কোনও সিদ্ধান্ত নেবেন না।   

এই মুহূর্তে দেশে কংগ্রেস দলের অন্দরেই দলের নেতৃত্ব নিয়ে নানারকম গুঞ্জন চলছেই। আর তারই মাঝে আজ বিকেলে কংগ্রেস শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন রাহুল গান্ধী। সূত্রের খবর এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট, মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ, পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং, ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল এবং পুদুচেরীর মুখ্যমন্ত্রী ভি নারায়নস্বামী।

যদিও বৈঠকে আলোচনার মূল এজেন্ডা কী তা এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট করে জানা যায়নি। তবে এবারের লোকসভা নির্বাচনে এত পুরনো এই দলের ভরাডুবির কারণ পর্যালোচনা করার জন্যই এই আলোচনা বলে, দাবি করছেন বিশিষ্ট মহল।