সিনেমা সিরিয়ালে কোর্টরুমে বা বাস্তবের মাটিতে আদালতের বিচারপতিকে 'মাই লর্ড' বা 'ইওর লর্ডশিপ' বা 'ইওর অনার' বলে সম্বোধন করা হয়ে থাকে। তবে এবার সেই প্রথায় ছেদ টানল রাজস্থান হাইকোর্ট। রাজস্থান হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল সতীশ কুমার শর্মা সোমবার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এমন ঘোষণা করেছেন।

জানা গিয়েছে ভারতীয় সংবিধানে বর্ণিত সাম্যের নীতির প্রতি মর্যাদা পোষণ করতেই বহু পুরনো এই ব্রিটিশ প্রথা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেইমতো সোমবার রাজস্থান হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি রবীন্দ্র ভাট-এর নেতৃত্বে একটি বৈঠরকে সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছ। 

পুত্রসন্তান লাভের আশায় ৭ বছরে ৭বার গর্ভপাত করানো হল গৃহবধুর

বন্যার জেরে ভারত-বাংলাদেশ-নেপালে মৃত অন্তত ১০০, ঘরছাড়া প্রায় ৪০ লক্ষ মানুষ

এর আগে ২০০৯ সালে মাদ্রাজ হাইকোর্টের বিচারপতি কে চন্দ্রু-ও একইভাবে বিচারপতিদের  'ইওর লর্ডশিপ' বলে সম্বোধর করার নীতির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। পাশাপাসি ২০১৪ সালেও একটি জনস্বার্থ মামলার শুনানির সময়ে বিচারপতি এইচ এল দাত্তু ও বিচারপতি এস এ বোবদের বেঞ্চ জানিয়েছিল, বিচারপতিদের ‘মাই লর্ড’ বা ‘ইয়োর অনার’ বা 'ইওর লর্ডশিপ' বলে সম্বোধন করাটা বাধ্যতামূলক নয়। প্রসঙ্ত ২০১৬-তে বার কাউন্সিল অব ইন্ডিয়ার তরফ থেকে আইনজীরা বিচারপতিদের 'স্যার' সম্বোধন করার নিয়ম বাধ্যতামুলক করেছিল।