রবিবার ফের কার্ফু জারি হল শ্রীনগরে। শনিবারই জম্মু সরকার এবং রাজ্য পুলিশের তরফে জানানো হয়েছিল,  জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি আগে থেকে অনেকটাই শান্তিপূর্ণ রয়েছে। জম্মু পুলিশ সূত্রে খবর ছিল, গত ছয় দিন ধরে কাশ্মীরে কোনও গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেনি। তবে তারা অনুরোধ জানিয়েছিলেন, তারা যেন কোনওরকম গুজবে কান না দেন। তাঁদের আরও দাবি জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষ সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বজায় রেখেন এবং যথেষ্ট সহযোগীতাও করছেন  বলে খবর। 

তবে সূত্রের খবর, রবিবার শ্রীনগর পুলিশ গাড়িতে করে ঘুরে ঘুরে বিভিন্ন এলাকায় লাউড স্পিকারে সব মানুষকে বাড়ি ফিরে যাওয়ার কথা ঘোষণা করছেন। দোকানদারদের বলা হয় দোকানের শাটার নামিয়ে দিতে। প্রসঙ্গত, শনিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে রাজ্যজুড়ে বিক্ষিপ্ত প্রতিবাদের ঘটনা ঘটেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, পুলিশ আধিকারিকরা মানুষের কাছে আবেদন করেছেন কাশ্মীরে গুলি চলা সংক্রান্ত কোনও গুজবে কান না দিতে। পাশাপাশি পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে যে,শ্রীনগরে ঈদের কেনাকাটার জন্য রাস্তঘাটে জমজমাট পরিবেশ বজায় ছিল বলেও খবর। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের এক মুখপাত্রের তরফে জানানো হয়েছিল, গত কয়েকদিনে শ্রীনগরে কয়েকটি বিচ্ছিন্ন প্রতিবাদের ঘটনা ঘটলেও কোথাও বেশি মানুষের জমায়েত চোখে পড়েনি। কিন্তু ফের কার্ফু জারির ঘটনা উঠে আসায় বিপাকে পড়েছেন সেখানকার স্থানীয় মানুষ।