ভরা জনসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ২০১৯ নিয়ে নরেন্দ্র মোদী সরকারের তীব্র সমালোচনা করছিলেন আরজেডি নেতা তথা রাজ্যসভার সাংসদ আশফাক করিম। মঞ্চে তাঁর আশপাশে তখন দাঁড়িয়ে দলের বিভিন্ন নেতা। তারমধ্যেই চরম অস্বস্তিতে পড়লেন তিনি। মোদীর সমালোতনা করতে করতে মঞ্চেই তাঁর পরণের প্য়ান্ট খুলে নেমে গেল। সম্প্রতি এই মজাদার ভিডিও-টি সোশ্য়াল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

মঞ্চে দাড়িয়ে সেই সময় করিম বলছিলেন, সকলেই জানেন সিএএ আইন মুসলমানদের বাদে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর-এর আগে ভারতে আসা লোকদের সঙ্গে সম্পর্কিত। এই আইনের মাধ্যমে সরকার পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আগত প্রত্যেককে নাগরিকত্ব দেবে, তবে বাদ যাবেন মুসলমানরা। এই বলে তিনি যখনই সিএএ আইন কতটা বৈষম্যমূলক তা ব্যাখ্যা করতে যাচ্ছিলেন, তখনই অসাবধানতাবশত তাঁর প্যান্ট নেমে যায়।

তবে এই আরজেডি বিধায়ককে কৃতিত্ব দিতেই হবে। ভরা জনসভায় প্যান্ট নেমে যাওয়ার পরও কিন্তু তাঁকে দমানো যায়নি। তিনি তৎক্ষণাৎ নিচু হয়ে প্যান্টটি তুলে নেন। তাঁর পাশের এক নেতাকেও দেখা যায় তাঁকে সহায়তা করতে। একহাতে প্যান্ট ধরেই তিনি আরেক হাতে মাইক নিয়ে বক্তৃতা চালিয়ে যান। পাশের নেতাটি তাঁর প্যান্টের বোতাম লাগিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন, কিন্তু তিনি হাত দিয়ে ইশারা করে জানিয়ে দেন তাঁর প্যান্ট ঠিক আছে। এরপর তিনি ফের মোদীর সমালোচনায় মেতে ওঠেন।

ভিডিওটি বিজেপি-র টুইটারখ্যাত নেতা তথা দিল্লি নির্বাচনের অন্যতম প্রার্থী তাজিন্দর পাল সিং বাগ্গা টুইট করেন। সঙ্গে ক্যাপশনে তিনি জানান বিহারের অরারিয়া জেলায় সিএএ বিরোধী সভায় বক্তৃতা দিচ্ছিলেন আরজেডি সাংসদ করিম। তখনই হঠাৎ এই ঘটনা ঘটে। বাগ্গার কটাক্ষ, 'এর জন্যও নরেন্দ্র মোদীকে দায়ী করা হবে'।

এর আগে পাক রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ এক জনসভায় কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বাতিল নিয়ে মোদী সরকারের সমালোচনা করতে গিয়ে মাইকের তার থেকে তড়দাহত হয়েছিলেন। সেই ঘটনার ভিডিও-ও ভাইরাল হয়েছিল।