খুব দ্রুত পুরনো ছন্দে ফিরতে চলেছে উপত্যকা। শুক্রবার কেন্দ্রের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে যে, আর অল্প কিছুদিবনের মধ্যেই কাশ্মীরের ওপর থেকে সমস্ত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে। প্রসঙ্গত, গত ৫ অগাস্ট তারিখে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা রদের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করার পর থেকেই উপত্যকায় যোগাযোগ ব্যবস্থার ওপর জারি করা হয় নিষেধাজ্ঞা। মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিষেবা ছিল কার্যত বন্ধ, বেশকিছুদিন ধরে সেখানে বন্ধ ছিল স্কুল-কলেজও। একাধিক এলাকায় কার্ফু জারি করা হয়েছিল।

তবে এবার আবার স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে চলেছে কাশ্মীর। প্রসঙ্গত, উপত্যকা থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার আবেদন কেন্দ্রের তরফে করা হয়েছিল সুপ্রিম কোর্টের কাছে। পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্ট-কে এই বিষয়েও আশ্বস্ত করা হয় যে, জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি ক্রমশই উন্নতির পথে। সেইসঙ্গে নিরাপত্তা ব্যবস্থার ওপরেও আস্থা রাখার আবেদন করা হয় সুপ্রিমকোর্টের কাছে। 

প্রসঙ্গত যোগাযোগ ব্যবস্থার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার পর সেখানে দৈনিক সংবাদপত্র প্রকাশ বন্ধ রয়েছে বলে খবর। পাশাপাশি ইন্টারনেট ও মোবাইল পরিষেবার বন্ধ থাকার কারণে সংবাদ সরবরাহও ব্যহত হচ্ছে বলে দাবি সেখানকার সংবাদপত্র সম্পাদকদের। তবে এদিন রাজ্যপাল সত্য পাল মালিক শ্রীনগরের সিভিল সচিবালয় এবং অন্যান্য সরকারী দফতরে আজ থেকে স্বাভাবিক কাজকর্ম শুরু করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। তবে উপত্যকায় গত ১২ দিন ধরে যেভাবে যোগাযোগ ব্যবস্থার সব মাধ্যম বন্ধ করে রাখা হয়েছিল, সেই অবস্থার খানিকটা হলেও উন্নতি হবে এবং সব ঠিকঠাক থাকলে আগামী সোমবারই সেখান স্কুল-কলেজ ফের খুলবে বলে জানা গিয়েছে।