করোনাভাইরাস-এর বিরুদ্ধে ভারতের যুদ্ধের নেতৃত্ব দিচ্ছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ বা আইসিএমআর। এবার খোদ আইসিএমআর-এরই এক প্রবীণ বিজ্ঞানীর করোনভাইরাস পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এল। এরপর দিল্লির পুরো আইসিএমআর ভবনটিকেই স্যানিটাইজ করা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর। আক্রান্ত বিজ্ঞানী গত সপ্তাহে মুম্বই থেকে দিল্লিতে এসেছিলেন। সেইসময়ই তাঁর করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়েছিল।

ওই বিজ্ঞানীরা মুম্বইয়ে অবস্থি আইসিএমআর-এর প্রজনন স্বাস্থ্যের জাতীয় গবেষণা কেন্দ্রের সঙ্গে যুক্ত। গত সপ্তাহে দিল্লিতে আইসিএমআর-এর একটি বৈঠকে তিনি অংশ নিয়েছিলেন। সেখানে আইসিএমআরের ডিরেক্টর জেনারেল ডাক্তার বলরাম ভার্গব-সহ অনেক বিশিষ্ট বিজ্ঞানী ও গবেষক উপস্থিত ছিলেন।

আইসিএমআরের ডিরেক্টর জেনারেল ডাক্তার বলরাম ভার্গব

সূত্রের খবর ওই বিজ্ঞানীর করোনাভাইরাস পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর আগামী দু'দিন ধরে দিল্লির আইসিএমআর ভবনটি স্যানিটাইজড এবং ফিউমিগেট (ধোঁয়ার সাহায্যে জীবানুমুক্ত) করা হবে। এর জন্য এই দু'দিন আইসিএমআর  সদর দফতরে কর্মরত কর্মীদের একাংশকে বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একান্ত প্রয়োজনে শুধু কোভিড-১৯'এর মূল দলটি আসতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে দিল্লির নীতি আয়োগের অফিসের জনৈক কর্মীও কোভিড-১৯ ইতিবাচক হিসাবে সনাক্ত হয়েছেন। তারপর, পুরো ভবনটি বন্ধ না করা হলেও নীতি আয়োগ অফিসের তৃতীয় তলটি সিল করে দেওয়া হয়েছে এবং সেখানে স্যানিটাইজেশনের কাজ চলছে।

গত সপ্তাহের শুরুতে, বিদেশ মন্ত্রকে কর্মরত অন্তত দুইজন কর্মকর্তার করোনভাইরাস পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এসেছিল। একজন মধ্য ইউরোপ বিভাগে পরামর্শদাতা, অন্যজন আইনবিভাগের কর্মকর্তা। সোমবার থেকেই অবশ্য ভারতে দুইমাসের বেশি সময় ধরে চলা লকডাউনের ইতি ঘটে, আনলক ১ পর্ব শুরু হয়েছে। ভারতে এই মুহুর্তে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ১,৯১,০৪১। সবচেয়ে ক্ষতচিগ্রস্ত দেশগুলির তালিকায় ফ্রান্স-জার্মানিকে পিছনে ফেলে দেশ এখন সাত নম্বরে। আর মৃত্যুর সংখ্যা ৫,৪১৩।